গয়না বিপননি সংস্থা, মাঝে মধ্যেই তাঁর ভিন্ন স্বাদের গল্প বলে থাকে বিজ্ঞাপনের মধ্যে দিয়ে। এবারও তেমনই কিছু চেষ্টায় ছিল তারা। কিন্তু তাতেই ঘটল বিপত্তি, বিতর্কের জেরে বন্ধ করে দিতে হল সেই বিজ্ঞাপন। ঠিক কী ছিল তাতে! অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী, হিন্দু ঘরের মেয়ে। বিয়ে হয়েছে মুসলিম ঘরে। বউয়ের স্বাদ ভক্ষণ করার জন্য যে রীতি দেখানো হয়, তা হিন্দু ঘরের, দুই ধর্মের মেলবন্ধন মেনে নিতে নারাজ ছিল নেট দুনিয়া। এরপরই তা ভাইরাল হয়ে ওঠে সর্বত্র। শুরু হয় প্রতিবাদ। 

এমনই সময় পাল্টা জবাবে সামনে আছে নিখিল নুসরতের ছবি। তাঁদের নাম উল্লেখ করে একজন পোস্ট করেন, এই বিজ্ঞাপনের মুখ হতে পাড়তেন নিখিল নুসরত। তাঁদের ক্ষেত্রেও তো দুই ধর্মের মিল ঘটেছে। আজ থেকে কয়েকদিন পর হলেও নুসরত মা হবেন। তখন কী এই একই পরিস্থিতি সেই পরিবারে সৃষ্টি হবে না! প্রশ্ন তোলেন এই ব্যক্তি। আর এর জেরেই স্পষ্ট হয়ে যায়, সমাজ ও সমাজের বর্তমান মানসিকতা। যতই ধর্মের ভেদাভেদ মিলনের সুরে মিলিয়ে যাক না কেন, কোথাও গিয়ে আজও এই তর্ক বিতর্ক প্রকোট হয়েই ধরা দেয়। 

 

 

নুসরত ও নিখিলকে পড়তে হয় ট্রোলের মুখে। উল্লেখ করা হয়, কেন বিজ্ঞাপনের জন্য অন্য মুখ খুঁজে নেওয়া হয়েছে, কেন নুসরত আর নিখিলকে দিয়েই এই শ্যুট করানো হল না। অথচ একই সময় সমাজের অন্য এক অংশ কিন্তু এই পরিস্থিতি নিয়ে খুব একটা সন্তুষ্ট নয়। তারা গ্রহণ করেছিলেন এই বিজ্ঞাপনের ভাবনাকে। যদিও তা তুড়ি মেরে উড়িয়ে বর্তমানে ভাইরাল এই ব্যক্তির নিখিল-নুসরত জুটিকে ঘিরে করা পোস্ট।