'রাণী রাসমণি' ধারাবাহিকের মোড় ঘুরতে চলেছে শীঘ্রই। হঠাৎই এক সাংঘাতিক কান্ড বাঁধিয়ে বসল রাসমণি। মা গঙ্গার কাছে নিজেকে সমর্পণ করতে চলেছে সে। কেন হঠাৎ এই পদক্ষেপ নিল রাসমণি। জলে ডুব দিয়ে মা গঙ্গার কাছে নিজেকে সমর্পণ করার কারণ কী। ছেলের মত জামাইয়ের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করে অনুশোচনায় ভুগছে সে। আর সেই অনুশোচনাই আর সহ্য করতে পারছে না রাসমণি। 

বিভিন্ন মনমালিন্যতার মধ্যেই দিয়ে গিয়েছে তাদের সম্পর্ক। যার পরই এই পদক্ষেপ নিতে চলেছে রাসমণি। নিজের মানত রক্ষা করতে পারেনি, মথুরের কাছেও ক্ষমাও চাইতে পারেনি সে। যার কারণেই মা গঙ্গার দিকে ছুঁটে যায় রাসমণি। পা ফলতে গিয়ে এক সদবা মহিলা এসে আটকায় তাকে। আটকাতেই তার সঙ্গে কথপোকথন শুরু হয়। সেখানেই নিজের মনের জ্বালা মেটানোর কথা বলে রাসমণি। তখনই সেই মহিলা, মা ভবতারিণীর কথা বলতে থাকে। 

আরও পড়ুনঃশালি-জামাই বাবু জিন্দাবাদ, মিমি-নিখিলের দুষ্টু মিষ্টি সম্পর্ক, নেপথ্যে নুসরত

 

করুণাময়ী মা ভবতারিণী, রাসমণিকে ক্ষমা করে দিয়েছে, এমনটাই বলে সে। অন্যদিকে বোধন ঠাকুর ও হরণ ঠাকুরের গদাধরের প্রতি হতাশা বাড়তেই থাকে। কমলা এবং প্রসন্নকে গদাধর ভক্তদের মধ্যে প্রসাদ বিতরণ করতে বলে। এতেই বেজায় হতাশ হয় বোধন ঠাকুর, হরণ ঠাকুর। মথুরের যদিও এতে সম্পূর্ণ সমর্থন আছে। তবে বোধন ও হরণ ঠাকুর কী পদক্ষেপ নেবে। প্রশ্ন উঠছে 'রাণী রাসমণি'র আগামী পর্ব  প্রস নিয়ে।