উইন্ডোজ প্রোডাকশনের ছবি 'ব্রহ্মা জানেন গোপন কম্মোটি'  গতকালই মুক্তি পেল প্রেক্ষাগৃহে। ছবিতে মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন টলি ইন্ডাস্ট্রির প্রথম সারির অভিনেত্রী ঋতাভরী চক্রবর্তীকে। মেয়েরা আজও অশুচি। পিরিয়ডটা বিষয়টা আজও যেন লুকোছাপা হয়েই রয়ে গেছে। রাস্তাঘাটে যখন তখন বিপদে পড়তে হয় মেয়েদের। আর সেই সমস্যা থেকে মেয়েদের মুক্তি দিতে নয়া উদ্যোগ নিয়েছেন ঋতাভরী চক্রবর্তী।  শহরে বিপ্লব ঘটানোর শপথ নিয়েছেন অভিনেত্রী। প্রতিটি মহিলাদের কুর্নিশ জানিয়েছে এই ছবি। এই ছবি মেয়েদের এগিয়ে যাওয়ার কথা বলে। ছবির প্রতিটি পরতে পরতে রয়েছে নয়া চমক।  ছবিতে  নারীশক্তির জয়গান গাইলেন চার গায়িকা।  ছবির প্রতিটি গানই গাওয়া হয়েছে মহিলাকন্ঠে। লগ্নজিতা, সোমলতা, উজ্জয়িনী, সুরঙ্গনার কন্ঠে রয়েছে ছবির সমস্ত গান।

আরও পড়ুন-প্রকাশ্যে শ্রীদেবীর কাছে বকা খেয়েছিলেন জাহ্নবী, জানুন কেন...

পুরুষতান্ত্রিক সমাজেও পুরুষ ছাড়াও যে  সমাজ চালানো সম্ভব হয়, তা যেন প্রমাণ করে দিল এই ছবি। ছবিতে কোনও পুরুষকন্ঠ নেই। এই প্রথম টলিউডের ছবি যেখানে শুধুমাত্র মহিলাকন্ঠের গান ব্যবহার করা হয়েছে। সিনেমার যে কোন গানে মহিলাদের থেকে পুরুষকন্ঠের আধিক্যই বেশি থাকে। কিন্তু এই ছবি উল্টোধারার। নারীকেন্দ্রিক ছবির সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সোমলতার কন্ঠে 'তুই চল', এবং সুরঙ্গনার কন্ঠে 'কোন গোপনে'গান দুটি ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় মন ছুঁয়েছে দর্শকদের। ছবির একটা অংশ হতে পেরে খুবই খুশি গায়িকারা।

আরও পড়ুন-বড় ধাক্কা খেলেন বরুণ, ব্যক্তিগত জীবন গ্রাস করল করোনা ভাইরাস...

পুরোহিত  তো অনেক দেখেছেন কিন্তু মহিলা পুরোহিত দেখেছেন কি। পিঁড়িতে বসে রয়েছেন বর কনে। আর  পুরোহিত হয়ে সেই যুবক-যুবতীর বিয়ে দিচ্ছেন টলি অভিনেত্রী ঋতাভরী চক্রবর্তী। অনেকেই হয়তো অবাক হচ্ছেন। ভাবছেন যে ভুল শুনছেন। কিন্তু ভুল নয়, একদমই ঠিকই শুনছেন। মহিলা পুরোহিত হয়ে যেমন বিয়ে দেবেন তেমনি আবার পুজোও দেবেন অভিনেত্রী। বাংলা  ছবিতে প্রথমবার দেখা যাবে সোহম মজুমদারকে। এর আগে বলিউডে 'কবির সিং' ছবিতে শাহিদ কাপুরের বন্ধুর চরিত্রে দেখা গিয়েছে সোহম। ছবির সংগীত পরিচালনা করেছেন অনিন্দ চট্টোপাধ্যায়। 

আরও পড়ুন-ডান্স ফ্লোরে আগুন ধরালেন ঝুমা বৌদি, উষ্ণ আবেদনময়ীর নাচ ভাইরাল নেটদুনিয়ায়...
অরিত্র মুখোপাধ্যায় পরিচালিত এই ছবিতে এক বাঙালি গৃহিনীর চরিত্রে দেখা যাবে ঋতাভরীকে। যার নাম শবরী। যিনি একজন সংস্কৃতের অধ্যাপক। এর পাশাপাশিই চিরাচরিত ধ্যান-ধারণার বাইরে গিয়ে তিনি একটি গোপন মিশনে যুক্ত। আর এই কাজে তাকে সাহায্য করে প্রমিলা বাহিনী। যৌথ পরিবারের বউ হওয়া সত্ত্বেও কীভাবে এই গোপন মিশন তিনি সম্পন্ন করেন এই নিয়ে এতদিন সবার কৌতুহল ছিল। এবার সব উত্তর তিনি নিজেই দিয়ে দিলেন। অধ্যাপনারা পাশাপাশিই প্রমিলা বাহিনীকে সঙ্গে নিয়ে ঘরে-বাইকে তিনি সমান তালে চালিয়ে যাবেন শবরী।