কলকাতায় শীতের সময়সীমা যেন ক্রমশ কমছে। এমন সময় ছিল যখন দুর্গা পুজো গেলেই শীতল হাওয়া বইত আকাশে। কালীপুজোর রাত থেকেই রীতিমত শাল জড়িয়ে বসতে হত। তবে এখন সেসব অতীত। শীতকালের সময়সীমা কলকাতায় এসে দাঁড়িয়েছে দু' থেকে আড়াই মাস। তাও সেভাবে জাঁকিয়ে ঠান্ডাও পড়ে না। তবে ঠান্ডা না পড়লে কি, বাঙালির কাছে শীত মানেই আলসেমি। যেকোনও কাজ করতে গেলে, ঘুম থেকে উঠতে গেলে সে যে কী কষ্ট তা বলে বোঝাবার নয়। 

এমনটাই জানালেন খোদ অভিনেত্রী সোহিনী সরকার। শীতকালে তাঁর কাছে সবচেয়ে যন্ত্রণাদায়ক হল স্নান করা। স্নানের ব্যাপার এলেই তিনি একেবারে উল্টো পথে হাঁটতে থাকেন। শীতকালে তাঁকে কেউ স্নান করতে বললেই, নয় তিনি হেসে উড়িয়ে দেবেন নয়তো চোখ রাঙাবেন। এমনটাই করলেন সম্প্রতি। চোখ মুখে ঠাট্টার রেশ নিয়ে কার দিকে তাকিয়ে সোহিনী। সেই ছবি পোস্ট করেছেন নিজের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টে। 

আরও পড়ুনঃবেবি বাম্প ফ্লন্ট করতেই গ্ল্যামার চুঁইয়ে পড়ছে করিনার, বেবোর Hot মম টু বি হওয়ার রহস্য কী

 

 

একটি হলুদ ড্রেসে সেজে মাঠের মধ্যে বসে তিনি। হাতে ফোন। সেই ফোন ঘাটতে ঘাটতেই কি হঠাৎ করে কেউ স্নানের প্রসঙ্গ তুলল। যদিও শটটি একেবারেই ক্যানডিড। নিজের এই ক্যানডিড ছবি পোস্ট করে ক্যাপশনে লিখেছেন, "যখন এই শীতে প্রতিদিন কেউ স্নান করার জন্য জ্ঞান দেয়।" ঠিক এই ঠাট্টা, তামাশায় ভরা মুখটাই ফুটে ওঠে সোহিনির। কেবল সোহিনিরই নয়, এ সকলেরই মনের কথা। শীতকালে স্নান করা আর পাঁচজনের মত সোহিনীর কাছেও কষ্টকর।