শারীরিক পরিস্থিতি সঙ্কটজনক হলেও সামান্য উন্নতি হয়েছে বর্ষীয়ান অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। ইতিমধ্যেই দ্বিতীয় ডায়ালিসিস করা হয়েছে অভিনেতার। হাসপাতাল সূত্রে খবর, তৃতীয় দফায় ডায়ালিসিস আপাতত স্থগিত রাখা হয়েছে সৌমিত্রর। শারীরিক পরিস্থিতি আগের থেকে অনেকটাই স্থিতিশীল। গত দু দফা ডায়ালিসিসের পর কতটা শারীরিক উন্নতি হয়েছে সৌমিত্রর, তা খতিয়ে দেখছেন চিকিৎসকেরা।

আরও পড়ুন-'আমার কেরিয়ার পুরোপুরি শেষ', আমিরের ছবি ফ্লপ হওয়ার পর বিস্ফোরক ফতিমা সানা শেখ...

গত শুক্রবার সৌমিত্রর সঙ্গে দেখা করেন তার পরিবারের সদস্যরা। হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, সৌমিত্রর রক্তে হিমোগ্লোবিন ও প্লেটলেটের পরিমাণ কমেছে আগের তুলনায়। ইতিমধ্যেই কয়েক ইউনিট রক্ত দিতে হয়েছে অভিনেতাকে। তবে শারীরিক পরিস্থিতির আর কোনও অবনতি ঘটেনি। জটিলতা কাটছে ধীরে ধীরে, শারীরিক পরিস্থিতি একইরকম রয়েছে ফেলুদার।  তবে এখনও সঙ্কটজনক  অবস্থায় রয়েছেন বর্ষীয়ান অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। ফুসফুসের সংক্রমণ আটকাতে যে ওষুধ দেওয়া হয়েছিল অভিনেতাকে, তা কতটা কাজ করেছে তাও খতিয়ে দেখা হবে। গত দুই দিন ধরে চোখ খোলার চেষ্টা করছেন অভিনেতা। চিকিৎসকদের ডাকে সাড়াও দিচ্ছেন অভিনেতা। কয়েকদিন ধরে ভেন্টিলেশন সাপোর্টের মাত্রা একই রয়েছে বলে খানিকটা আশার আলো দেখছেন চিকিৎসকেরা। আপাতত স্থিতিশীল থাকলেও এখনও সঙ্কট মুক্ত নন অভিনেতা।

 

হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, শারীরিক  পরিস্থিতির কোনও উন্নতি হয়নি আবার অবনতিও হয়নি। হিমোগ্লোবিন সহ আর সবকিছুই স্বাভাবিক রয়েছে। তবে এই মুহূর্তে রোনাল ফাংশানের উন্নতি প্রয়োজন রয়েছে ভীষণভাবে। এবং সেই কথা ভেবেই ২ দফায়  ডায়ালিসিস করা হয়েছে অভিনেতাকে । এবং তাতে ইতিবাচক সাড়া পেয়েছে চিকিৎসকেরা। এতে ক্রিয়েটিনিনের মাত্রাও কমবে বলে মনে করা হচ্ছে। বর্ষীয়ান অভিনেতার অক্সিজেন স্যাচুরেশন ৪০ থেকে ৫০ শতাংশের মধ্যেই রয়েছে। এবং শরীরের ক্ষতিকারক ব্যাকটিরিয়াকেও ইতিমধ্যে চিহ্নিত করা গিয়েছে। সেই অনুযায়ী ওষুধ চলছে। একটানা ২২ দিন ধরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অভিনেতা।  প্রতি মুহূর্তেই সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের শারীরিক পরিস্থিতি মনিটার করছেন চিকিৎসকেরা। তার সুস্থ হওয়ার পথে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে সেই কো-মর্বিডিটি এবং বয়স। তার শারীরিক অবস্থার এই খবরে সকলের তার সুস্থতার কামনা করছেন।