কিছুদিন  আগেই খ্যাতনামা পরিচালক অরিন্দম শীলের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ এনেছিলেন টলিপাড়ার জনপ্রিয় অভিনেত্রী তথা বিজেপির প্রভাবশালী নেত্রী  রূপাঞ্জনা মৈত্র। সেই বির্তকের রেশ কাটতে না কাটতেই নয়া বির্তকে জড়ালেন পরিচালক অরিন্দম শীল। মিটু-র থেকেও বড়সড় অভিযোগ আনলেন অরিন্দমের প্রাক্তন স্ত্রী তনুরুচি শীল। অভিনেত্রী রূপাঞ্জনা মৈত্রর পাশে দাঁড়িয়েছেন অরিন্দমের প্রাক্তন স্ত্রী। তনুরুচি জানিয়েছেন,  এখনও পর্যন্ত তার সঙ্গে অরিন্দমের আইনি বিচ্ছেদ হয়নি।  প্রেম করে রেজিস্ট্রি মতে ১৯৯৩ সালে তারা বিয়ে করেন। ঠিক ১০ বছর যেতে না যেতেই ডিভোর্সের মামলা দায়ের করা হয়। গত বছরই সেই মামলা খারিজ হয়ে গেছে। 

আরও পড়ুন-জন্মদিনেই পর্দাফাঁস, জোড়া চমক নিয়ে হাজির পরমব্রত...

তারপরও কেটে গিয়েছে এতগুলি বছর। তাহলে এখন কেন হঠাৎ তার প্রাক্তন স্ত্রী এই কথাগুলি বলছেন আর কেনই বা এত বছর পরে অভিযোগ তুলেছন এই নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। কিন্তু তনুরুচি স্পষ্ট জানিয়েছেন, সকলে যাতে অরিন্দমের আসল ছবিটা দেখতে পায়। সেই কারণেই তিনি সবটা সবাইকে জানাতে চাইছেন। নিজের সম্পত্তি নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন  তনুরুচি। কারণ সম্পত্তি থেকেও নাকি বঞ্চিত করা হয়েছে তনুরুচিকে। তাদের দুজনের যৌথভাবে একটি ফ্ল্যাট কেনা ছিল সেটাও অরিন্দম একা দখল করেছেন বলে জানিয়েছেন তনুরুচি। 

আরও পড়ুন-রহস্য অভিযানে প্রস্তুত ফেলুদা, দেখে নিন অন্দরমহলের হাল হকিকত...


২০১৮ সালে মিটু ঝড় আছড়ে পড়েছিল গোটা হলিউডে। সেই আন্দোলন ছড়িয়ে পড়েছিল গোটা বলিউড জুড়ে। বলিউডের পর সেই ঝড় উঠল এবার টলিউডেও।  বহু অভিনেতা অভিনেত্রী থেকে শুরু করে পরিচালক, প্রযোজক কর্মক্ষেত্রে যৌন হেনস্তা নিয়ে অকপটে মুখ খুলেছিলেন। শুধু তাই নয়, প্রত্যেকের নামও প্রকাশ্যে এনেছিলেন। কেউ কেউ আবার কাস্টিং কাউচ নিয়েও মুখ খুলেছিলেন। তবে রূপাঞ্জনা একাই নন, রূপাঞ্জনার মতো আরও অনেকেই যৌন লালসার শিকার হয়েছেন। রূপাঞ্জনার ফেসবুকে করা একটি পোস্ট থেকেই সেই ইঙ্গিত মিলেছে। যারা যারা রূপাঞ্জনার মতো এই ঘটনার শিকার হয়েছেন তারাও এবার মুখ খুলেছেন। একের পর এক নয়া নয়া তথ্য যেন ক্রমশ উঠে আসছে। এই বিবাদ যে চলতেই থাকবে তার আঁচ এখন থেকেই টের পাওযা যাচ্ছে। তবে এর বিরুদ্ধে কী আদৌ কোনও তদন্ত করা হবে। সেটার অপেক্ষায় রয়েছেন প্রত্যেকেই।