বড়দিনের উৎসবে মেতে উঠেছে গোটা শহর। নানা রঙের আলোয় সেজেছে তিলোওমা। উৎসবের মরশুমে সবাই যখন সেলিব্রেশনে ব্যস্ত তখন ওরা গভীর ঘুমে মত্ত। কেই বা ভাবে ওদের কথা। কিন্তু ওরা নিজেদের জগতে বেশ খুশি। শীতপোশাকও হয়তো সবার নেই। হয়তো বা কারোর কারোর গায়ে কম্বল নেই। গুটিসুটি মেরে শুয়ে রয়েছে ছোট্ট  জায়গার মধ্যে। তাদের কাছে বড়দিনের আনন্দের কোনও গুরুত্বই নেই। আর সেই সমস্ত পথশিশুদের জন্যই বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে স্টার জলসা। 'আমিও সান্তা' উদ্যোগের মাধ্যমে বড়দিনের ঠিক আগেই শহরের রাস্তায় নামলেন বাস্তবের সান্তা।

আরও পড়ুন-'বিগ বস ১৩' নয়া চমক, সিদ্ধার্থকে নিয়ে এবার মুখ খুললেন রেশমি...

শহরের আনাচেকানাচে যাদের কাছে উপহার তো দূরের কথা বড়দিনের কেকটাও হয়তো পায় না তারা। শহর কলকাতার দিন-দরিদ্র ফুটপাতবাসীর জন্য এই বিশেষ উদ্যোগ ভোররাতে পথশিশুদের সিক্রেট সান্তা হলেন টেলি অভিনেতা ঋষি কৌশিক। সান্তার ছদ্মবেশে আনন্দের সঙ্গে পথশিশুদের হাসি ফোটালেন তিনি। ভোরের আলো তখনও ফোটেনি। ঠিক সেই সময়ই ঘুমন্ত শিশুদের পাশে উপহার রেখে আসলেন সান্তা। কাঁধে ঝোলা আর মাথায় টুপি পরে এভাবেই শহরের রাস্তায় আনাচে কানাচে ঘুরে বেড়ালেন তিনি। আর ঝুলি ভর্তি উপহার দিলেন পথশিশুদের।

 

আরও পড়ুন-বেবোর ক্রিসমাস পার্টির একঝলক, দেখে নিন নজরকাড়া ছবিগুলি...

বড়দিনের আগের দিন রাত থেকেই লাল মোজা ঝোলানো, সান্তা দাদপর উপহার, এই নিয়েই যেন কৌতুহলী হয়ে থাকে সব বাচ্চারাই। পথশিশুরাও রয়েছেন সেই তালিকায়। সান্তা সেজে এমন অভিনব উদ্যোগ নিয়ে পথশিশুদের খুশি করা এই পুরো বিষয়টাই খুবই আনন্দের সঙ্গে উপভোগ করেছেন ঋষি কৌশিক। আগামী মাস থেকেই স্টার জলসার নতুন ধারাবাহিক 'কোড়া পাখি'-তে অভিনয় করতে চলেছেন ঋষি কৌশিক। তার বিপরীতে দেখা যাবে পার্নো মিত্রকে।