প্রয়াত পরিচালক বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত। বার্ধক্যজনিত কারণে দীর্ঘদিন অসুস্থ ছিলেন তিনি। আজ ভোর ৬টা নাগাদ নিজের বাড়িতেই শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। তাঁর মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে টলিপাড়ায়। শোক প্রকাশ করেছেন একাধিক পরিচালক, অভিনেতা। 

পরিচালক গৌতম ঘোষ : অনেকটা ক্ষতি হয়ে গেল। আমরা একসঙ্গে কাজ শুরু করেছিলাম। আমাকে জোর করে অভিনয় করিয়েছিলেন। অনেক স্মৃতি রয়েছে। সবটাই সুখের স্মৃতি হয়ে থেকে যাবে। ওঁর আত্মার শান্তি কামনা করি। 

পরিচালক অনীক দত্ত : শেষ কথা হয়েছিল আমার শেষ ছবির সময়। অনেক দিন আগে দেখা হয়েছিল। শারীরিকভাবে অসুস্থ ছিলেন। কলেজ জীবনে যাঁদের কাজ আমাকে অনুপ্রাণিত করত, তাঁদের মধ্যে বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত অন্যতম। অনেক বড় মাপের মানুষ ছিলেন। 

সাহিত্য়িক শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় : আমার গল্প 'দূরত্ব' দিয়েই ওঁর চলচ্চিত্র অভিযান শুরু হয়। ওঁকে আমি কবি হিসেবেই চিনতাম। আমি খুবই স্নেহ করতাম। কয়েক বছর আগে দেখা হয়েছিল। শরীর ভালো ছিল না।

অভিনেতা পরমব্রত চট্টোপাধ্যায় : তাঁর মৃত্যু অপূরণীয় ক্ষতি। 

পরিচালক রাজ চক্রবর্তী : একাধিক জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সম্মান পেয়েছেন, একজন কিংবদন্তী পরিচালক ও বিখ্যাত কবি বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত চলে গেলেন। তাঁর পরিবার ও বন্ধুদের প্রতি সমবেদনা জানাই।

 

 

অভিনেতা সোহম চক্রবর্তী : বাংলা ছবির ইন্দ্রপতন। প্রয়াত পরিচালক, কবি বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত। তাঁর আত্মার শান্তি কামনা করি। সিনেপ্রেমী বাঙালির মনে আপনি চিরকাল থেকে যাবেন।

 

 

অভিনেতা জিৎ : সিনেমা জগতের বিশাল ক্ষতি হয়ে গেল। আপনার কাজকে খুবই মিস করব।

 

 

পরিচালক অরিন্দম শীল : আপনি দেশের এই অংশ থেকে সিনেমা তৈরি করেছেন এর জন্য গর্বিত। আপনার আত্মার শান্তি কামনা করি।