দীর্ঘদিন ধরে গুরুতর অসুস্থ ছিলেন সন্তু মুখোপাধ্যায়। চলতি মাসের ৪ ফেব্রুয়ারি তার শারীরিক অবস্থার পতন হওয়ার  তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গতকালই নিজের গল্ফগ্রিনের বাড়িতে সন্ধ্যে ৭.৩০ নাগাদ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। বেশ কিছুদিন ধরেই দুরারোগ্য মারণ ব্যাধি  ক্যান্সারে  আক্রান্ত ছিলেন অভিনেতা। মৃত্যুকাল তার বয়স হয়েছিল ৬৯ বছর। তার এই অকাল প্রয়ানে গভীর ছায়া নেমে এসেছে টলিউডে।

আরও পড়ুন-'শেষ সময় এক সঙ্গে অনেক কাজ করেছি,' সন্তু মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যুতে ভেঙে পড়লেন সাবিত্রী...

টলিপাড়ার ফের নক্ষত্রপতন। মাত্র কিছুদিন আগেই প্রয়াত হলেন  অভিনেতা তথা প্রাক্তন সাংসদ তাপস পাল। সেই বিষাদের রেশ কাটতে না কাটতে চলে গেলেন সন্তু মুখোপাধ্যায়। একের পর  এক নক্ষত্ররা এভাবেই ছেড়ে চলে যাচ্ছেন টলি ইন্ডাস্ট্রিকে। কেউই যেন তার মৃত্যুকে মেনে নিতে পারছেন না।

 

আরও পড়ুন-স্বামীর সোহাগে ভাসলেন নুসরত, প্রকাশ্যে এল অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ছবি...

 

 

অভিনেতা- পরিচালক পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়  জানিয়েছেন,  'তার প্রথম ফিচার ফিল্ম 'হেমন্তের পাখি'-র কথা। ওই ছবিতে পরমের বাবার চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন সন্তু। খুব ভাল সম্পর্ক ছিল ওনার সঙ্গে। খেতে খুব ভালবাসতেন। খুব ভাল মনের মানুষ ছিলেন তিনি। ভীষণই খারাপ লাগছে '।

অভিনেত্রী অপরাজিতা আঢ্য জানিয়েছেন,  ' প্রচুর কাছ শিখেছি ওনার থেকে। আমাকে ভীষণ ভালবাসতেন। দীর্ঘ দিন ধারাবাহিকে একসঙ্গে কাজ করেছি। অসুস্থ সেটা জানতাম। কিন্তু এত তাড়াতাড়ি যে প্রিয় মানুষটাকে হারিয়ে ফেলব। তা বুঝতে পারিনি।'

অভিনেত্রী সুদীপ্তা চক্রবর্তী জানিয়েছেন, 'বাঙালির আরেক হার্টথ্রব চলে গেলেন। আপনার হাসিমুখ মন খারাপকেও ভাল করে দিত সন্তু কাকু। ভালো থাকবেন। কোনওভাবেই মেনে নিতে পারছি না।'

 'নক্সি কাঁথা' ধারাবাহিকের কেন্দ্রীয় চরিত্র মানালিও গভীর ভাবে শোকাহত। তিনি জানিয়েছেন, 'অনেক কিছু পেয়েছি, অনেক কিছু শিখেছি ওনার থেকে। খুব মজা করতেন। একসঙ্গে শিবুদা -নন্দিতাদির সঙ্গেও কাজ করেছি আমরা'।

অভিনেত্রী পায়েল সরকার জানিয়েছেন, 'কেরিয়ারের শুরুতেই ওনার সঙ্গে প্রথম কাজ। সেইভাবে তখন কাজের সুযোগ না হলেও ওনাকে পেয়েছিলাম। খুবই খারাপ লাগছে। অপূরণূয় ক্ষতি সকলের জন্য।'

আরও পড়ুন-উন্মুক্ত বক্ষে শরীরী উষ্ণতায় নেটদুনিয়া কাঁপাচ্ছেন এই বঙ্গতনয়া, ছবিতেই মুগ্ধ নেটিজেনরা...

পরিচালক সৃজিত জানিয়েছেন, 'মনে পড়ে যাচ্ছে  তার সঙ্গে কাটানো মুহূর্তগুলো। নিজের বাবার সঙ্গেও মিল পাচ্ছেন তিনি। তিনি জানিয়েছেন, তার বাবা মনে করতেন উওম কুমারের পর তিনি বাংলা সিনেমা জগতের সবথেকে প্রমিসিং অভিনেতা।'

তপন সিংয়ের  'রাজা ' ছবি দিয়েই বড় পর্দায় প্রথম কাজ করা। তারপর একে একে তরুণ মজুমদার, হরনাথ চক্রবর্তী প্রমুখ পরিচালকের সঙ্গে চুটিয়ে কাজ করেছেন সন্তু মুখোপাধ্যায়। তবে শুধু বড়পর্দায় নয়, বড়পর্দার পাশাপাশি মঞ্চ, যাত্রা, সবক্ষেত্রেই নিজের অভিনয়ের ছাপ রেখে গেছেন। এমনকী ধারবাহিকেও তার অভিনয় মুগ্ধ করেছিল সকলকে। সম্প্রতি 'নক্সি কাঁথা' ধারাবাহিকে অভিনয় করছিলেন অভিনেতা। আর দেখা যাবে না কোনদিনও তাকেয শুধু স্মৃতির মনিকোঠায় অমলিন হয়ে থেকে যাবে তার ছবি।