সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্টের হাজারো একটা নিয়ম রয়েছে। এক এক সোশ্যাল সাইটে এক এক রকমের নিয়ম। নিয়ম সকলের ক্ষেত্রেই সমান হওয়া উচিত। সত্যিই কি তাই! এমনটা মোটেও নয়, এই মন্তব্যই করতে হয় পুনম পান্ডের প্রোফাইল দেখে।

ইনস্টাগ্রামের পেজ জুড়ে একের পর এক ছবিতে হতবাক করে দেয় সকলেই। প্রচণ্ডরকমের ভাইরালও হচ্ছে এই ছবি। কীভাবে কর্তৃপক্ষের নজর এড়িয়ে চলছে এমন প্রোফাইল? তার উত্তর মেলা ভার। তবে কী কেবল পূণমের জন্য বদলাচ্ছে নিয়ম! নাকি এই প্রোফাইল এখনও নজরে পরেনি ইনস্টাগ্রামের, এ তথ্য কোনও মতেই মেনে নেওয়া সম্ভব নয়। কর্তৃপক্ষের  নজর এড়িয়ে দিনের পর দিন পূণমের প্রোফাইলে এই ছবি যাওয়া কোনও মতেই সম্ভব নয়। ফলে প্রশ্ন জাগে।
এমনকী গত কয়েকদিন ধরেও পূণমের সব অর্ধনগ্ন ছবি আর ভিডিও পোস্ট হচ্ছে। তাতে লাইকের সংখ্যা কয়েক লক্ষ। কমেন্ট পড়ছে হাজারে হাজারে। দিন দুই আগেও পরনের অন্তর্বাস দেখিয়ে এক যৌন আবেদনের ছবি পোস্ট করেছেন পূণম।

এই মডেলকে নিয়ে বিতর্ক অবশ্য সবসময়ই হয়েছে। ২০১১ সালে পূণম প্রথম পাদপ্রদীপের আলোয় আসেন। বলেছিলেন, ভারত বিশ্বকাপ ক্রিকেটে চ্যাম্পিয়ন হলে তিনি প্রকাশ্যে নগ্ন হবেন। এরপর থেকেই উল্কার গতিতে প্রচারের আলোয় উঠে আসেন পূণম। তিনি 'নেশা' নামে একটি ছবিতে নায়িকার ভূমিকায় অভিনয় করে বলিউডে অভিষেকও ঘটান। কিন্তু, পূণমের শরীর সর্বস্ব সেই সিনেমায় চিত্রনাট্য এতটাই দূর্বল ছিল যে তা বক্স অফিসে চলেনি। এরপরও তিনি বেশ কয়েকটি ছবি করেন। কিন্তু, সেগুলি সিনেমাপ্রেমীদের কদর পায়নি। বেশ কয়েকটি দক্ষিণী ছবিতেও তাঁকে দেখা গিয়েছে। কিন্তু, আপাতত অভিনেত্রী হিসাবে পূণমের কেরিয়ার মুখ থুবড়ে পড়েছে। এহেন পূণম এখন ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে নিজের নামে ওয়েবসাইট খুলেছেন। যেখানে পূণমের লাস্যময় সব ভিডিও, ছবি ও বক্তব্য প্রত্যক্ষ করার সুযোগ মেলে। এহেন পূণমের ভক্তদের আকর্ষণ করার অন্যতম মাধ্যমও হল ইনস্টাগ্রামের মতো সোশ্যাল সাইট। তাই হট-হট ছবি পোস্ট করে যান তিনি।  

পূণম পাণ্ডে বেশকিছু ওয়েব সিরিজও তৈরি করেছেন। যার মূল কাহিনি তাঁকে ঘিরেই এবং তিনি-ই মুখ্য অভিনেত্রী। এমনকী তৈরি করেছেন শর্ট ফিল্ম। এগুলো এক শ্রেণির দর্শকের কাছে এতটাই জনপ্রিয়তা পেয়েছে যে পূণম নিজের বাজারটা-কে অন্যভাবে মেলে ধরতে চাইছেন।