লকডাউনে হারিয়ে চাকরি, আর্থিক অবস্থায় দারুণ ক্ষতি, সঞ্চয়ের টাকা গিয়ে দাঁড়িয়েছে শূণ্যতে। এর মধ্যে কিছু বিক্রি করে দোকানদারি করা ছাড়া নেই কোনও উপায়। এমনই অবস্থা হয়েছে অক্ষয় কুমারের সহ অভিনেতা কার্তিকা সাহুর। অক্ষয়ের আগামী ছবি সূর্যবংশী-তে কাজ করেছিলেন কার্তকা। অক্ষয়ের সঙ্গে অ্যাকশন দৃশ্যও শ্যুট করার পর যে তাঁকে একদিন রাস্তায় সবজি বিক্রি করতে হবে এমনটা ভাবেননি তিনি। মাস চারেক আগেই মুম্বই থেকে ওড়িশা ফিরেছেন কার্তিকা। প্রথমে নিজের সঞ্চিত অর্থ দিয়ে চলছিল সংসার। বাড়ির এক সদস্যের অসুস্থতার কারণে সেই সঞ্চিত অর্থের শেষের দিকে। 

আরও পড়ুনঃঐশ্বর্য-আরাধ্যা কোভিড নেগেটিভ, ছাড়া পেলেন নানাবতী থেকে

বাধ্য হয়ে সবজি বিক্রি করছেন রাস্তায়। সূর্যবংশী ছবির কাজে জয়পুরে শ্যুটিং করেছিলেন কার্তিকা। তারপরই লকডাউনের ঠিক শুরু দিকেই চলে আসেন নিজের বাড়িতে। মাত্র ১৭ বছর বয়স থেকে মুম্বই শহরে এসে থাকতে শুরু করেন বলিউডে কাজ পাওয়ার আশা করে। অমিতাভ বচ্চন এবং সচিন তেন্দুলকরের দেহরক্ষী হিসাবে কাজ করেছেন কিছু বছর। ২০১৮ সাল থেকে ধীরে ধীরে বলিউডে জুনিয়র আর্টিস্ট হিসাবে জায়গা করতে শুরু করেন কার্তিকা। এই পথচলা শুরু হতেই একের পর এক বহু ছবিতেই কাজ করেছেন তিনি। রোহিত শেট্টির 'সূর্যবংশী'র প্রস্তাবটি আসতেও আর্থিক সমস্যা মিটল না তাঁর।

আরও পড়ুনঃসুশান্তের মৃত্যু তদন্তে বয়ান দিলেন মহেশ ভাট, থানার সামনে পাপারাৎজির ক্যামেরায় পরিচালক

 

আর্থিক সংকটে পড়ে অবশেষে ওড়িশার রাস্তায় সবজি বিক্রি করা ছাড়া কোনও উপায় রইল না তাঁর কাছে। প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগেই অভিনেতা জাভেদ হয়দারকেও সবজি বিক্রি করতে দেখা গিয়েছিল। একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয় যেখানে তাঁকে সবজি বিক্রি করতে দেখা যায়। তবে পরে তিনি স্পষ্ট করে জানান, তিনি ভ্যান নিয়ে সবজি বিক্রি করছিলেন ঠিকই তবে সকলকে সাহস জোগানোর জন্য এবং বোঝানোর জন্য যে কোনও কাজই ছোট নয়।