আজই বসতে চলেছে ২০১৯-এর চলচ্চিত্র পুরস্কারের আসর। সারা শহর জুড়ে মরশুমের সাজ। আলোর রোশনাইয়ে মেতে উঠেছে গোটা দেশ। এই বছর জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের আসর বসবে নয়া দিল্লির বিজ্ঞান ভবনে। সাধারণত রাষ্ট্রপতি এই বিশেষ পুরস্কার তুলে দেন  বিজয়ীপ্রার্থীদের হাতে।  কিন্তু রাষ্ট্রপতি  রামনাথ কোবিন্দ  অনুষ্ঠানে  যোগ নাও দিতে পারেন বলে জানা গেছে। উপস্থিত থাকবেন উপরাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নাইডু। তিনি এই বছর বিজয়ীদের পুরস্কার তুলে দেবেন। বলিউডের শাহেনশাহ অমিতাভ বচ্চনকেএই বছর অভিনয়ের সর্বোচ্চ সম্মান দাদসাহেব ফালকে সম্মানে ভূষিত করা হয়েছে।

আরও পড়ুুন-বড়দিনের আগে 'সান্তা' বেশে নুসরত, কম্বল বিতরণ দুঃস্থ ও যৌনকর্মীদের...

তবে দুঃখের বিষয় হল, অসুস্থতার কারণে এই বছর জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকতে পারবেন না অমিতাভ। নিজের ট্যুইটার হ্যান্ডেলে এ কথা নিজেই জানিয়েছেন বিগ বি। দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কার পেলেও নিজের হাতে তা গ্রহন করতে পারবেন না অভিনেতা। অমিতাভ জানিয়েছেন, 'জ্বর হয়েছেন। ভ্রমণের অনুমতি নেই। অনুষ্ঠানে যেতে পারছি না। খুবই দুর্ভাগ্যজনক এবং খুবই খারাপ লাগছে।'

বিগ বি-র এই ট্যুইটটি দেখার পরই দুঃখের ছায়া নেমেছে অনুরাগীমহলে। এবছর অসুস্থতার কারণে কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে উপস্থিত থাকতে পারেন নি অভিনেতা। কিছুদিন আগেই অসুস্থতার কারণে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন অভিনেতা। বাড়ি ফিরেই সোজা শ্যুটিং-এ কাজে ব্যস্ত ছিলেন অভিনেতা। আপাতত দেশে ফিরেই চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী তিনি বিশ্রামের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। 

আরও পড়ুন-চুম্বনকে সাক্ষী রেখে বড়দিনের শুভেচ্ছা, নজর কাড়লেন আয়ুষ্মান-তাহিরা...

রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ উপস্থিত কেন থাকছেন না সেই নিয়েও নানান প্রশ্ন ঘোরাফেরা করছে। অনেকেই মনে করছেন গত বছর জাতীয় পুরস্কারকে কেন্দ্র করে জোর সমালোচনার শিকার হয়েছিলেন তিনি। মাত্র ১১ জন বিজয়ীকে নিজের হাতে পুরস্কার তুলে দিয়েছিলেন তিনি। বাকী পুরস্কার তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি তুলে দেন। যা নিয়ে জোর সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি। যার কারণে গতবছর জাতীয় পুরস্কার বয়কট করেছিলেন ৬০ জন পুরস্কার প্রার্থী। হয়তো সেই কারণেই তিনি এই বছর আসছেন না বলে মনে করছেন অনেকেই।