সোশ্যাল মিডিয়ায় চলছে জোর প্রতিবাদ। সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুতে বিচার চায় দেশবাসী। শুরু হয়েছে বয়কট বলিউড মাফিয়া নামে পিটিশনে সই করানো। নেপোটিজমকেও বয়কট করে স্টারকিডদের বিরুদ্ধে চলছে হেট কমেন্টস। ট্রোলার, হেটারদের পোস্টে ভরে চলেছে সোশ্যাল মিডিয়া। সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর জন্য দায়ী করা হচ্ছে বলিউডের মাফিয়া গ্যাংকে। যেখানে ঝড়ের গতিতে সই করে যাচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায় ইউজাররা। বলিউড মাফিয়া গ্যাংয়ের মধ্যে নাম রয়েছে করণ জোহার, সলমন খান, সঞ্জয় লীলা বনশালী, একতা কাপুর, দিনেশ বিজন, ভূষণ কুমার, আদিত্য চোপড়া, আলিয়া ভাট, মহেশ ভাট, মুকেশ ভাট, রিয়া চক্রবর্তী এবং সাজিদ নাদিয়াদওয়ালা। এই প্রতিবাদকে শয়তানির নাম দিলেন আরবাজ খান।

আরও পড়ুনঃ'স্বজনপোষণে না, আমার কাজে ভরসা রেখ প্লিজ', নেটিজেনের কাছে ইরফানের ছেলের অনুরোধ

তিনি সম্প্রতি ট্যুইটারে লেখেন, "খালি মাথা শয়তানের ঘরে। একটি ইংরেজি প্রবাদ যা আমাদের স্কুলে শিখিয়েছিল। সেই সময় আমি অত্যন্ত ছোট ছিলাম। বিষয়টির গভীর অর্থ বুঝিনি। তবে আশপাশে যা চলছে তা দেখে বুঝতে পারছি প্রবাদটির কথাগুলি কতটা সত্যি।" যদিও নিজের ট্যুইটার অ্যাকাউন্ট লক করে দিয়েছেন আরবাজ। যে সকল নেটিজেনরা তাঁকে ফলো করে তাদের রোষের মুখে পড়েছেন অভিনেতা তথা প্রযোজক। তাঁর উদ্দেশ্যে নেটদুনিয়ার দাবি, "আপনার সমস্যা কোথায় হচ্ছে। সুশান্তের মৃত্যুর জন্য সলমনকে দায়ী করা হচ্ছে বলে। আর আশপাশে কী আবার চলবে। সত্যতা সকলের সামনে আসা উচিত। আর সেটাই উঠে আসছে। আর কত ধামাচাপা দেবেন।"

আরও পড়ুনঃ'স্বজনপোষণ থাকলেও প্রতিভার জোরে টিকতে হবে এখানে', নেপটিজমে রণবীর কাপুরের মন্তব্য

 

স্টারকিড এবং বলিউডের প্রভাবশালী ব্যক্তিদের মধ্যে যাঁরা সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ অ্যাক্টিভ তাঁদের ফলোয়াড় সংখ্যা কমে চলেছে ক্রমশ। ভক্তরা যেখানে তাঁদের পোস্টের জন্য অধীর আগ্রহে বসে থাকত ভক্তরা, নেটিজেনরা, সেখানে তারা একে একে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে সেলেব্রিটিদের থেকে। করণ জোহারের ফলোয়াড়দের সংখ্যা কমেছে সবচেয়ে বেশি। সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোল করার পাশাপাশি, ব্যান করার দাবি উঠছে তাঁদের ছবি। গোটা দেশ এঁদের এবং স্টারকিডদের বিরুদ্ধে ফুঁসছে। সোশ্যাল মিডিয়াকে হাতিয়ার করেই টার্গেট করা হচ্ছে তাঁদের। করণ জোহারের ফলোয়াড়ের সংখ্যা কমেছে এগারো মিলিয়ন থেকে দশ মিলিয়ন। সলমন খান, আলিয়া ভাট, সোনম কাপুরের ফলোয়াড় সংখ্যা কমে চলেছে।