বলিউড মাফিয়া গ্যাং-এ জুড়ল আরও এক নাম। গুলজার সাহেবের মেয়ে মেঘনা গুলজারকে মাফিয়া বলে দাবি করলেন লেখক হরিন্দর সিক্কা। নামটি অত্যন্ত জনপ্রিয়তা পায় ২০১৮ সালে রাজি ছবির হাত ধরে। আলিয়া ভাট অভিনীত মেঘনা গুলজার পরিচালিত রাজি ছবির হরিন্দর সিক্কার লেখা কলিং সেহমত ছবির উপর ভিত্তি করে তৈরি। যাঁর গল্প থেকে নিয়ে নিজের চিত্রনাট্য সাজিয়েছিলেন মেঘনা তাঁকেই নাকি বাদ রেখেছিলেন ছবির সমস্ত প্রচার অনুষ্ঠান এবং পোস্ট প্রোডাকশন থেকে। এমনই মন্তব্য করে বিস্ফোরক হয়ে উঠলেন হরিন্দর সিক্কা। 

আরও পড়ুনঃলন্ডনে ফিরে ভাঙলেন কোয়ারেন্টাইনের নিয়ম, সোনমকে গ্রেফতার করার দাবি নেটিজেনদের

মেঘনা ছবির ক্লাইম্যাক্স বদলে নিজের মত করে ফেলেছিলেন হরিন্দরের বিনা অনুমতিতেই। এমনকি সমস্ত বইয়ের লঞ্চের অনুষ্ঠানেও যেতে দেননি হরিন্দরকে। নিজেই রাজি ছবির সমস্ত কৃতিত্ব নিতে চেয়েছিলেন, অভিযোগ সিক্কার। জয়পুরের লিট ফেস্টে সিক্কার নাম সরিয়ে দেওয়ার জন্য মেঘনা চাপ দিয়েছিলেন আয়োজকদের। ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ড থেকে সেরা সেরা অরিজিনাল স্টোরি থেকে মেঘনা সরিয়ে দিয়েছিলেন হরিন্দরের নাম। 

আরও পড়ুনঃসামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে কিং খান-ই একমাত্র ভরসা, অভিনেতার পন্থায় বার্তা দিল অসম পুলিশ

 

হরিন্দরের অভিযোগ, রাজি-তে ভারতীয় সেনাকে নেতিবাচক হিসাবে দেখানো হয়েছে। সেহমত যখন দেশে ফিরছে তাঁকে দুঃখিত, হতাশ রূপে দেখানো হয়। অথচ হরিন্দের বইতে সেহমত গর্বিত এবং দু'চোখে আনন্দ নিয়ে দেশে ফেরেন। ছবিতে ভারতীয় সেনাকে নিয়ে ভিন্ন ঘটনা দেখানো হয়েছে। ছবির সমস্ত পোস্ট প্রোডাকশনের কাজেও ডাকা হয়নি হরিন্দরকে। তিনি যাতে গুণাক্ষরেও টের না পান যে ছবির ক্লাইম্যাক্স বদলে ফেলা হয়েছে। হরিন্দর সিক্কার এই অভিযোগে মেঘনা কী জবাব দেন সেই অপেক্ষায় বসে সিনেপ্রেমীরা।