মারণ রোগের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে  লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন সঞ্জয় দত্ত।  বলি অভিনেতা সঞ্জয় দত্তর স্টেজ ফোর-এ ধরা পড়েছিল ফুসফুসের ক্যান্সার। সকলেই তার শরীর খারাপের খবরে উদ্বিগ্ন। মারণ রোগের সঙ্গে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন। কোনও অবস্থাতেই হার মানতে নারাজ তিনি। ক্যান্সারকে হারিয়ে নভেম্বরেই কাজে ফিরবেন বলেই আশ্বাস দিয়েছেন সঞ্জয় দত্ত।  এরই মধ্যে ভক্তদের সুখবর দিলেন সঞ্জয় দত্ত। সম্প্রতি নিজের টুইটারে যুদ্ধ জয়ের  কথা টুইটে জানিয়েছেন অভিনেতা।

 

 

হাতে আর মাত্র ৬ মাস বাকি, সঞ্জয়কে নিয়ে এই খবর যেন রাতের ঘুম উড়িয়েছিল ভক্তদের। অবশেষে সমস্ত গুঞ্জনকে তুড়ি মেড়ে সুখবর দিলেন সঞ্জয় দত্ত। কয়েকদিন আগে শোনা গিয়েছিল তিনি চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন। আজই সেই সুসংবাদ জানালেন অভিনেতা। ইকরা ও শাহরানের ১০ বছরের জন্মদিনেই যুদ্ধ জয়ের ঘোষণা করলেন অভিনেতা।

 

সম্প্রতি নিজের টুইটে  সুখবর জানিয়েছেন অভিনেতা। এর পাশাপাশি  কঠিন সময়ে যারা তার পাশে থেকেছেন সকলকেই ধন্যবাদ জানিয়েছেন সঞ্জু বাবা। তিনি আরও জানান, শেষের কয়েকটা দিন ভীষণ কঠিন ছিল। তবে শেষমেষ সমস্ত যুদ্ধ জয় করে সন্তানদের জন্মদিনে খুশির খবর দিতে পেরে আমি আনন্দিত। এই কঠিন যুদ্ধে জয়লাভ করে ভীষণ খুশি সঞ্জয় দত্ত।পরিবার, বন্ধু, অনুরাগীদেরও ধন্যবাদ জানিয়েছেন সঞ্জয় দত্ত। এবং এর পাশাপাশি বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানিয়েছেন কোকিলাবেন হাসপাতালের ডঃ সেওয়ান্তি এবং তার গেটা টিমকে। যারা সবরকম ভাবে তার খেয়াল রেখেছেন।

বিশেষজ্ঞদের মতে, চতুর্থ পর্যায়ের ফুসফুসের ক্যানসারের ক্ষেত্রে  রোগীর বাঁচার সম্ভাবনা খুবই কম থাকে। গত পাঁচ বছরের রিপোর্টে দেখা গেছে, মাত্র ১০ শতাংশ রোগী এই পর্যায়ের ক্যান্সারকে হার মানাতে পেরেছেন। কিন্তু তিনি পুরো উল্টো। শরীরে মারণ রোগ বাসা বাঁধলেও দমে যায়নি সঞ্জয়ের ডেডিকেশন। কেমোথেরাপি মধ্যেও আপকামিং ছবি 'শামসেরা'র শুটিং শুরু করেছিলেন অভিনেতা। বাকি ছিল ৬ দিনের শুটিং। আবার তা শেষ করতেই মাঠে নেমেছিলেন সঞ্জয়। এর মধ্যেই হাতে রয়েছে বেশ কয়েকটি বিগ বাজেটের ছবি। বর্তমানে ৬ টি ছবি রয়েছে সঞ্জয়ের হাতে। তার মধ্যে বেশ কয়েকটি ছবির কাজ শেষ। আবার কয়েকটির কাজ এখনও বাকি।