কঙ্গনা রনাওয়াতের গ্রেফতারিতে অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ মুম্বই হাইকোর্টের। কঙ্গনা রনাওয়াত এবং তাঁর দিদি রঙ্গোলি চান্ডেলকে হাজিরা দিতে হবে আগামী ৮ জানুয়ারি। তাঁদের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া এফআইআর বাতিলের জন্য আদালতের দ্বারস্থ হন দুই বোন। সেই নির্দেশ দিল মুম্বই হাইকোর্ট। ৮ জানুয়ারি বেলা বারোটা থেকে দু'টোর মধ্যে বান্দ্রা থানায় হাজিরা দিতে হবে তাঁদের। এমনই নির্দেশ দিল মুম্বই হাইকোর্ট। 

ধর্মীয় বিদ্বেষ ছড়ানোর অভিযোগে আসে তাঁর এবং রঙ্গোলির বিরুদ্ধে। ধর্মীয় উস্কানিমূলক পোস্ট এই প্রথম নয়, কঙ্গনা এর আগেও নিজের টুইটার অ্যাকউন্ট থেকে বিভিন্ন পোস্ট করেছেন রাজনৈতিক, ধর্মের বিষয় নিয়ে। সোশ্যাল মিডিয়া, সাক্ষাৎকারের মাধ্যমে ধর্মীয় বিদ্বেষ ছড়িয়েছেন কঙ্গনা। দুই ধর্মের বিরুদ্ধে বিভেদ আনার চেষ্টায় উনি। এই অভিযোগের ভিত্তিতেই তাঁর বিরুদ্ধে এফআইআর নথিভুক্ত করার নির্দেশ দেয় বান্দ্রা মেট্রোপলিটন পুলিশ।

আরও পড়ুনঃ'অপুষ্টির শিকার নাকি আপনি', মৌনি রায়ের চেহারা নিয়ে কুমন্তব্য নেটিজেনের

যারপরই সমন পাঠানো হয় তাঁদের। তিনবার সমন পাঠানোর পরও দুই বোনের মধ্যে একজনও হাজির হননি। কঙ্গনার কথায়, সেই সময় তাঁদের বাড়িতে বিয়ের অনুষ্ঠান চলছিল। ভাইয়ের বিয়ের কারণেই সমনের পরিবর্তে তাঁরা থানায় উপস্থিত হতে পারেননি। তবে এই অযুহাত মানতে নারাজ ছিলেন বিচারপতিরা।