সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু রহস্যের তদনম্তে নামানো হোক সিবিআই। এমনটাই দাবি জানানো হয়েছিল প্রয়াত অভিনেতার পরিবারের পক্ষ থেকে। ১৪ জুন সুশান্তের আত্মহত্যার ঘটনা সামনে আসার কিছুদিনের পর থেকেই সিবিআই তদন্তের আর্জি জানিয়েছিলেন সুশান্ত ভক্তকূল। সেই তালিকাতে নাম লিখিয়েছিলেন বিজেপির বেশ কিছু শীর্ষ স্থানীয় নেতা-মন্ত্রীরাও। যদিও তদন্ত নিয়ে তখন মুম্বই পুলিশই রাজ করছিল, তবে তা থেকে সন্তুষ্ট ছিলেন না সুশান্তের পরিবার। 

আরও পড়ুনঃ জলসার অন্দরমহল, এক টাকা খরচ না করেও কীভাবে ১০০ কোটির বাংলো হল অমিতাভের

কেকে সিং, সুশান্তের বাবা চেয়েছিলেন সিবিআই তদন্ত, সেই মতই সুপারিশ করেছিল নীতিশ সরকার। যাতে সম্মতি জানিয়েছিলেন বিহারের রাজ্যপাল ফাগু চৌহানও। এই আর্জি নজরে আসার পরই তা গ্রহণ করে কেন্দ্র। শীর্ষ আদালতকে জানিয়ে দেওয়া হয় বুধবারই যে সিবিআই তদন্তে নামা নিয়ে কেন্দ্রের অনুমতী রয়েছে। এদিন রিয়া চক্রবর্তীর কেসের প্রথম শুনানি ছিল। রিয়া আর্জি জানিয়েছিলেন তদন্তের ভার দেওয়া হোক মুম্বই পুলিশকেই। শুনানির সময়ই শীর্ষ আদালত থেকে জানানো হয়, সত্য সামনে আসুক। সিবিআই তদন্তের ভার নিক। 

সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা শীর্ষ আদালতের আগেই জানিয়েছিলেন বিহার সরকারের আর্জি মেনে নেওয়া হয়েছে কেন্দ্রের তরফ থেকে। এবার সিবিআই গ্রহণ করল এই তদন্ত। সিবিআই-এর পক্ষ থেকে বুধবারই জানিয়ে দেওয়া হয় শীঘ্রই শুরু হয়ে যাবে তদন্ত। মঙ্গলবার মুম্বই পুলিশের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন সুশান্তের বাবা, তিনি একটি ভিডিও প্রকাশ করে জানান, ২৫ ফেব্রুয়ারি মুম্বই পুলিশে অভিযোগ দায়ের করা হলেও তারা তা গ্রহণ করেনি। ফলে তিনি আস্থা হারাচ্ছিলেন, তা জানিয়েও ছিলেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমারকে। বর্তমানে সুশান্তের কেস সিবিআইয়ের হাতে তুলে দেওয়াতেই ভরসা রাখছে পরিবার। এবার সেই স্বপ্নপূরণ হল। এখন দেখার তদন্তের মোড় কোন দিকে ঘোরে।