প্রবীণ চলচ্চিত্র পরিচালক বুদ্ধদেব দাশগুপ্তের প্রয়াত, খবর প্রকাশ্যে আসা মাত্রই তা ছড়িয়ে পড়ে নেটমহলে। আবেগে ভাসে সিনে দুনিয়া। কেবল টলিউড নয়, ভারতীয় সিনে জগত ছিল তাঁর চরাচর, আর সেই স্মৃতিতেই পরতে-পরতে জড়িয়ে দীপ্তি নাভাল। যার প্রথম হিন্দি ছবিতে ছিলেন দীপ্তি। ছবির নাম আন্ধি গলি (১৯৮৪)। সেই একটাই ছবিতে কাজ করা, তবুও স্মৃতির পাতায় আজও জ্বল জ্বল করছে সেই দিনগুলি। 

আরও পড়ুন- "অনেকটা ক্ষতি হয়ে গেল", বুদ্ধদেব দাশগুপ্তর প্রয়াণে শোকস্তব্ধ টলিপাড়া 

প্রয়াণের খবর পেয়ে তারই একচিলতে সোশ্যাল পেজে শেয়ার করে নিলেন দীপ্তি নাভাল। তিনি পরিচালককে দাদা বলেই ডাকতেন। লিখলেন- আমি দাদার সঙ্গে কাজ করেছি মাত্র একটা ছবিতে। আমার মনে আছে ভারসোভাতে শ্যুটিং করা হয়েছিল, আর সঙ্গে ছিলেন কুলভুশন খারবন্দে। এই কাজটি করার সময় পরিচয় ঘটে। আমি এই গুণী ব্যক্তির সঙ্গে কাজ করার সুযোগ পেয়ে সত্যি আনন্দিত। সর্ব কালের বন্ধু ও দাদার মতন ছিলেন তিনি আমার জীবনে। আমি কলকাতায় গেলেই একবার দেখা করতাম। তিনিও তাঁর কবিতার বই আমায় পাঠাতেন। 

বৃহস্পতিবার সকালেই প্রয়াত হন বাংলার কিংবদন্তী পরিচালক বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত। বেশ কিছুদিন ধরে বার্ধক্যজনিত কারণে অসুস্থ ছিলেন তিনি। সমস্যা ছিল কিডনিও। যার জন্য নিত্য চলত ডায়ালিসিস। শেষ কয়েকদিন তাঁর শরীর ভালো যাচ্ছিল না। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৭ বছর। এদিন ভোর ৬টা নাগাদ তিনি নিজ বাসভবনেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।