নিজের বানানো রেস্তোরাঁই এখন পরের অধীনে। আর ফেরত পেতে গেলে দিতে হবে দেড় কোটি টাকা। কথাটা শুনলেই চক্ষু যেন চড়কগাছ হয়েছে অনেকেরই । হ্যাঁ এটাই সত্যি। বলি অভিনেতা ধর্মেন্দ্রর হি ম্যান রেস্তোরাঁ এখন জালিয়াতিদের খপ্পরে। সবথকে বেশি বিশ্বাস করে যে মানুষটিকে রেস্তোরাঁর জেনারেল ম্যানেজার বানিয়েছিলেন তিনিই কব্জা করে নিয়েছেন ধর্মেন্দ্রর সাধের রেস্তোরাঁ।

আরও পড়ুন-'জীবনের সেরা পাস্তা এটাই', শেফ শাহিদের প্রশংসায় পঞ্চমুখ মীরা...

চলতি বছরের প্রেমদিবস অর্থাৎ ১৪ ফেব্রুয়ারির  দিন হি ম্যানের উদ্ধোধন করেন অভিনেতা ধর্মেন্দ্র। হরিয়ানার কারনালের জিটি রোডের উপরই এই রেস্তোরাঁর পথ চলা শুরু। এটি এমনই এক রেস্তোরাঁ যেখানে দেশি আমিষ খাবার সন্ধান মিলবে বলে জানিয়েছিলেন ধর্মেন্দ্র। চাষ করা সব্জি সরাসরি পৌঁছে যেত হোটেলে। আর সেই চাষের সব্জিতেই মিলত দেশি স্বাদ ও গন্ধ। কিন্তু সবকিছুই যেন আজ কেমন অতীত।

আরও পড়ুন-'এই জিনিসটি ছাড়া বাঁচতে পারবে না নিক', বেডরুমের গোপন তথ্য ফাঁস প্রিয়ঙ্কার...

ধর্মেন্দ্রর রেস্তোরাঁর ডিরেক্টর বিকাশ কুমার জানিয়েছেন, হি ম্যানের একমাত্র কর্মী নবদীপ নিজেকে সংস্থার জেনারেল ম্যানেজার হিসেবে পরিচয় দিতেন। বিশেষত সরকারি আধিকারিকদের সঙ্গে নিজেকে জেনারেল ম্যানেজার বলেই পরিচয় দিতেন। সূত্র থেকে জানা গেছে নবদীপ এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে তার সৎব্যবহার করেছেন। রেস্তোরাঁর  লেটার হেড ও স্ট্যাম্প জালিয়াতি করে নিয়েছে। গত ২৭ মে একটি সরকারি ইমেল মারফত নিজেকে জেনারেল ম্যানেজার দাবি করে দেড় কোটি টাকা দাবি করেছেন। ইতিমধ্যেই নবদীপের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।