লকডাউনে ক্রমেই দেশের পরিস্থিতি জটিল হয়ে যাচ্ছে। বদলে গিয়েছে এত বছরের চেনা শহর, মানুষের জীবন-যাপন। বছর পড়তেই খবরের শিরোনামে এসেছিল মারণ ভাইরাস, চিনে তখন একের পর এক মানুষ ঢলে পড়ছে মৃত্যুর কোলে, ভারতের চোখে তখন চিন ঘিরে চিন্তা, প্রত্যহ আলোচনায় উঠে আসছে একটাই নাম করোনা ভাইরাস। তখনও জানাছিল না আর কয়েক সপ্তাহের পরই বদলে যেতে চলেছে ভারতের চেনা ছবিও। 

এরপরই ভারতের বুকে করোনার থাবা। ইতিহাসের পাতায় শুরু হল নতুন অধ্যায়। স্বাধীনতার পর প্রথম মানুষ আবারও বন্দি জীবনের সাক্ষী। বন্ধ পথঘাট, গাড়ি, বন্ধ মানুষের আনাগোনা, হুল্লোর, আনন্দ। নেই আচার অনুষ্ঠান, নেই সাধারণের মুখে হাঁসি। ২৫ মার্চ প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণায় স্তব্ধ হল গোটা দেশ। ফাঁকা রাস্তার সেই ভয়াবহ চিত্রই এবার ধরা পড়ল ভারত বালার ফ্রেমে। তৈরি হল ডকু ফিচার, উঠেঙ্গে হাম। একদিকে যেমন লকডাউনে বদলেছে সাধারণ মানুষের জীবন, ঠিক তখনই প্রকৃতির এক ঝাঁচকচকে রূপ ধরা পড়ল ক্যামেরায়, পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাস্তা, দূষণ মুক্ত শহর। 

আরও পড়ুনঃ আজ থেকেই শুরু হচ্ছে না টলিপাড়ার শুটিং, চিন্তায় টেকনিশিয়ানরা

উঠেঙ্গে হাম সোশ্যাল মিডিয়ায় মুক্তির পেতেই ভিউ ছাড়ালো লক্ষাধিক। ১৪টি রাজ্যের ছবি ধরা পড়ে এই চার মিনিটের ফিল্মে। এআর রহমানের মিউজিকে প্রতিটা ফ্রেম হয়ে ওঠে জীবন্ত। একে একে ধরা পড়ে বজনবহুল দেশের এক না দেখা ছবি। ভারতের বিভিন্ন প্রান্তে লকডাউনের সাক্ষী থাকল এই ডকু ফিচার। ১৩৩ কোটি মানুষ ঘরে বন্দি। নেই চাকরি, এ কোন দিন দেখতে হচ্ছে, তা ভেবে এক শ্রিণীির মানুষের চোখের জল আজ শুকিয়ে গিয়েছে। কিন্তু নতুন এক ভোরের অপেক্ষা করা আজও বন্ধ হয়নি। ক্রমেই ফিরছে ছন্দ, ফিরছে চেনা ছবি। পরিস্থিতিকে বসে আনতে তৎপর সাধারণ মানুষের চোখে এক নতুন ভোরের স্বপ্ন।