আতঙ্কের আর এক নাম করোনা। একের পর এক শহরে মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ছে এই রোগ। এই করোনা আতঙ্ক এখন ছড়িয়ে পড়েছে সর্বত্র। মুহূর্তের মধ্যে একজনের থেকে আরেকজনের শরীরে ছড়িয়ে পড়ছে এই ভাইরাস। একের পর এক অভিনেতা-অভিনেত্রীরাও করোনো নিয়ে আতঙ্কিত।  একদিকে যখন  করোনা ভাইরাস নিয়ে  সারা বিশ্বে সতর্কতা জারি হয়েছে, ঠিক সেই সময়েই করোনা নিয়ে উদ্যোগী হয়েছে বলিউডের প্রযোজক থেকে পরিচালক মহল।  মহামারি মারণ রোগ করোনাকে কীভাবে গল্পের মাধ্যমে ছবিতে ফুটিয়ে তোলা যাবে, এই নিয়ে মরিয়া হয়ে উঠেছেন  পরিচালকরা। অল্প সময়ের মধ্যেই করোনার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে  তাদের আগামী ছবির নাম রেজিস্ট্রার করেও নিয়েছেন তারা।

আরও পড়ুন-রমরমিয়ে চলছিল দেহব্যবসা, চিকাগো-য় মধুচক্রের মক্ষীরানি ছিলেন ১১ জন ভারতীয় অভিনেত্রী...

সূত্র থেকে জানা গেছে,  আগামী ছবির নাম রাখা হয়েছে, 'করোনা প্যায়ার হ্যায়'। ইতিমধ্যেই এই নাম ভাইরাল হয়েছে নেটদুনিয়ায়। ২০০০ সালে ব্লকবাস্টার ছবি  'কহো না প্যায়ার হ্যায় ' নামেই এই নয়া ট্যুইস্ট আনা হয়েছে। ইতিমধ্যেই ছবির চিত্রনাট্য লেখার কাজও প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে।  সূত্র থেকে শোনা গেছে, করোনা ভাইরাসের এই প্রেক্ষাপটকে কাজে লাগিয়ে এক প্রেমের কাহিনি লেখার কাজ চলছে। ইন্ডিয়ান ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন প্রোডিউসারা কাউন্সিলের তরফে জানানো হয়েছে,  গত সপ্তাহেই  'করোনা প্যায়ার হ্যায়' নামে একটি ছবি রেজিস্ট্রার করেছে ইরস ইন্টারন্যাশনাল। 'ডেডলি করেনা' নামেও আর একটি ছবির নাম রেজিস্ট্রার করা হয়েছে।

আরও পড়ুন-গভীর রাতেও প্রভাসকে ফোন কেন অনুষ্কার, সম্পর্কের কথা খোলসা করলেন অভিনেত্রী...

বলিউডে এই প্রথমবার নয়, এর আগেও এই ঘটনাকে বহুবার দেখা গিয়েছে। ইতিমধ্যেই করোনার দাপটে একের পর এক ছবির শ্যুটিং বন্ধ হচ্ছে। থিয়েটার থেকে সিনেমাহল সবই প্রায় দর্শকশূন্য। আর এই সময়েই করোনা নিয়ে ছবি করতে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন পরিচালক-প্রযোজকের একাংশ। মানুষের সংস্পর্শেই সংক্রমিত হচ্ছে এই করোনা ভাইরাস । মানুষের নিঃশ্বাস প্রশ্বাসের সঙ্গেই ছড়িয়ে যাচ্ছে এই রোগের জীবানু।  যত দিন যাচ্ছে ততই যেন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে ভাইরাসে আক্রান্ত এবং মৃতের সংখ্যা। সারা দেশে  মহামারির আকার ধারণ করেছে এই করোনা ভাইরাস।  ইতিমধ্যে মুম্বইতে জারি হয়েছে ১৪৪ ধারা। করোনা আক্রান্তের মধ্যেই ইতিমধ্যেই মুক্তি পিছিয়েছে 'সূর্যবংশী', 'জার্সি', 'ব্রহ্মাস্ত্র'-এর মতো একাধিক ছবি।  এমনকী বক্স অফিসের লোকসানের মুখে রয়েছে সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি 'আংরেজি মিডিয়াম'।