সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু নিয়ে মুখ খুললেন কঙ্গনা রনাওয়াত। সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষোভ উগরে দিলেন কঙ্গনা। বলিউড এবং নেপটিজমকেই দায়ী করলেন কঙ্গনা। রোষে ফেটে পড়লেন অভিনেত্রী। তিনি জানান, "সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর খবর আমাদের ছিন্নবিন্ন করে দিয়েছে। কিন্তু তাঁর মৃত্যুকে নিয়ে রাজনীতি শুরু করেছে অনেক মানুষ। সুশান্তের নাকি মাথার ঠিক ছিল না। এই সব বলে বেড়াচ্ছে অসংখ্য অমানবিক মানুষজন। মানসিক চাপে ছিল বলেই নাকি আত্মহত্যা করেছেন।"

আরও পড়ুনঃআগে যদি রাধুনি কড়া নাড়ত, তাহলে কি সুশান্তের এই পরিস্থিতি হত, প্রকাশ্যে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য

তিনি আরও জানা, "একজন মানুষ মেধাবী ছাত্র হিসেবে পরিচিত। ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ভাল ছিল। একজন ব়্যাঙ্ক হোল্ডার ছিলেন সুশান্ত, তাঁর কীকরে মাথা খারাপ হয়। নিজের শেষের সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টে তিনি বারে বারে সকলকে অনুরোধ করতেন, 'আমার ছবি দয়া করে সবাই দেখ। আমার ছবি তোমরা না দেখলে আমায় ইন্ডাস্ট্রি থেকে বের করে দেওয়া হবে। আমার কোনও গডফাদার নেই বলিউডে, তোমরাই আমার সব।'" কঙ্গনা দাবি করেন, সুশান্তকে আত্মহত্যার করার জন্য বলিউডকে দায়ী করলেন। বলিউড তাঁকে কর্নার করে দিয়েছিল। ইন্ডাস্ট্রির একজন সদস্যা হিসেবেই গণ্য করত না। 

আরও পড়ুনঃবিকৃত মানসিকতার পরিচয় দিয়ে সুশান্ত মরদেহের ছবির মিম, নেওয়া হচ্ছে আইনি পদক্ষেপ

কঙ্গনা আরও বলেন, "আপনার কি মনে সুশান্তের এই মৃত্যুর সঙ্গে এসবের কোনও যোগ নেই। কাই পো ছে-র মত ছবিতে অভিনয় করার পরও কোনও ডেবিউ অ্যাওয়ার্ড দেওয়া গেল না। কেন ভাল ছবিকে কোনও সম্মান দেওয়া হয় না। গাল্লি বয়ের মত খারাপ ছবি একের পর এক সম্মান দেওয়া হয়েছে। এরা সুশান্তকে নিউরটিক বলছে, অ্যাডিক্টেড বলছে। এদিকে আপনাদের সঞ্জয় দত্তের অ্যাডিকশন তো খুব ভাল লাগে। এটা পরিকল্পিত খুন, আত্মহত্যা নয়। এই ইন্ডাস্ট্রি এবং কিছু সংবাদমাধ্যম ঠেলে দিয়েছে ছেলেটিকে। সুশান্তের ভুল একটাই। নিজের মায়ের কথায় বিশ্বাস না করে এদের কথা শুনল। এরা বলল তোমার দ্বারা কিছু হবে, সুশান্ত মেনেও নিল।"