ক্ষুদিরাম বসু। দেশের কনিষ্ঠতম বিপ্লবীদের মধ্যে একজন ছিলেন তিনি। এনার মতই অসংখ্য স্বাধীনতা সংগ্রামীদের রক্ত দিয়ে আজ স্বাধীনতা দিবসের রাঙা হয়ে উঠছে প্রতি বছর। আর তাঁরই ছবি কিনা ভেসে উঠল দুষ্কৃতীদের স্কেচের তালিকায়। বাস্তবজীবনে নয়, হয়েছে সিনেপর্দায়। তবে ঘটনাটি সিনেপর্দাতেই বা ঘটল কীকরে। জি ফাইভের জনপ্রিয় ওয়েব সিরিজ 'অভয় টু'-এর দ্বিতীয় পর্বে একটি দৃশ্যে দেখা গেল তদন্তের সময় কুণাল খেমু যেই ঘরে ঢুকলেন, সেখানে দুষ্কৃতীদের স্কেচের বোর্ডে টাঙানো রয়েছে ক্ষুদিরাম বসুর ছবি। অত্যন্ত স্পষ্ট ছিল দৃশ্যটি বারে বারে চোখে লাগছিল। প্রথম দেখাতেই ক্ষওভ উগরে দিতে ইচ্ছে করল দেশের বহু মানুষের। 

আরও পড়ুনঃতুর্কিতে শ্যুটিং 'লাল সিং চাড্ডা'র, ভক্তদের ধাক্কায় চোট পেতে পেতে বাঁচলেন আমির খান

নিমেষের মধ্যে শুরু হল সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিবাদ। একের পর এক স্ক্রিনশট পোস্ট হয়েই চলেছে। দৃশ্যটির ছবি যত ভেসে আসছে ততই রোষে ফেটে পড়ছে জনতা। এমন ভুল ইচ্ছাকৃত নাকি অনিচ্ছাকৃত তা জানা নেই কারোরই। তবে এই ভুল যে অনিচ্ছাকৃতও হওয়ার কথা নয় তা পরিষ্কার। তার উপর সিরিজের পরিচালক বাঙালি। কেন ঘোষ। ব্যক্তিগতভাবে ক্ষমা চাওয়া তো দূরের বিষয়, জি ফাইভের একটি সাধারণ ক্ষমাপ্রার্থী হওয়ার টুইটকে শেয়ার করেই ঘাড় থেকে সমস্ত দায়িত্ব ঝেড়ে ফেললেন তিনি। দেশবাসী সহ এই ঘটনার নিন্দা করেছেন রুদ্রনীল ঘোষও। 

আরও পড়ুনঃসুশান্ত বনাম বলিউড, প্রথম সারির তারকাদের নিস্তবদ্ধতাই দিল উত্তর

আরও পড়ুনঃমা হতে চলেছেন টলিউড অভিনেত্রী পূজা বন্দ্যোপাধ্যায়, পোস্ট করলেন বেবি বাম্পের ছবি

স্বাধীনতা দিবসে বাড়িতে বসে এই ওয়েব সিরিজটি দেখতে দেখতে তাঁর এই ভুলটি চোখে পড়ে। আর তাতেই তিনি একটি ভিডিও পোস্ট করে নিজের মতামত জানান। জি ফাইভের কথায় দৃশ্যটিতে ক্ষুদিরাম বসুর ছবিটি ব্লার করে দেওয়া হয়েছে। তবে ভুল যা হওয়ার হয়েই গিয়েছে। স্বাধীনতা দিবসে এমন ভুল করার পর নেটিজেনের হাত থেকে ছাড়া পাওয়ার কোনও উপায় নেই। সিরিজ থেকে শুরু করে জিফাইভকে ব্যান করার রব তুলেছে নেটিজেনরা।  

আরও পড়ুনঃসুশান্তের মৃত্যুর দিন তাঁর বাড়িতে কে এই রহস্যময়ী নারী, তাড়াহুড়োতে কোথায় পালালেন তিনি

 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

কি করে হয় এ ভুল??

A post shared by Rudranil Ghosh (@rudranilrudy) on Aug 16, 2020 at 3:50am PDT