লকডাউনের জেরে রোজগার বন্ধ হয়ে গিয়েছে অসংখ্য মানুষের। অর্থকষ্টে ভোগা, কাজ হারানো, পারিশ্রমিক আটকে যাওয়া সবরকমের সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন বিনোদন জগতের মানুষেরাও। সম্প্রতি উঠে এল মহাভারতের অভিনেতা সতীশ কৌলের নাম। মহাভারতে ভগবান ইন্দ্রের চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন তিনি। ৬৫ বছর বয়সী অভিনেতা কেবল অর্থকষ্টে ভুগছেন তাই নয়, শরীরে নান অসুস্থতা নিয়ে কোনও রকমে বেঁচে আছেন তিনি। তিনশোরও বেশি পঞ্জাবী ছবিতে অভিনয় করেছেন সতীশ। দুবছর বৃদ্ধশ্রমে ছিলেন তিনি। সেখান থেকে এখন লুধিয়ানায় ভাড়াবাড়িতে থাকছেন তিনি। সত্য নামক একজন মহিলা তাঁর দেখভাল করে। পেনশনে কোনওভাবে চলছে তাঁর। ক্ষোভ এবং দুঃখপ্রকাশ করে তিনি বলেন, ইন্ডাস্ট্রির কেউ আগেও তাঁদের বিষয় ভাবেনি, আজও ভাবেনা।

প্রসঙ্গক, দিন কতক আগে হামারি বহু সিল্ক ধারাবাহিকটি নিয়ে সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের বক্তব্য রেখেছিলেন বলিউড অভিনেত্রী কৃতি স্যানন। ধারাবাহিকের একজন টেকনিশিয়ান টাকা পাননি। ধারাবাহিকের তিন প্রযোজক টাকা মেটাননি উল্টে হুমকি দিয়েছেন টাকা চাইতে গেলে। কৃতি স্যানন পূর্ণ সমর্থন জানিয়ে একটি পোস্ট করেছিলেন। হামারি বহু সিল্কের টেকনিশিয়ানের ভিডিওর পাশাপাশি প্রকাশ্যে এসেছে আরও একটি খবর। মাসের পর মাস টাকা না পাওয়ায় আত্মহত্যা করার চেষ্টা করেছিলেন ধারাবাহিকের প্রধান অভিনেত্রী চাহাত খান্না। গত বছর ধারাবাহিকটি বন্ধ করে দেওয়া হয় হঠাৎ।

মাত্র পাঁচ মাস চলেছিল ধারাবাহিকটি। ধারাবাহিকের মূল অভিনেতা জান খান নিজের একটি ভিডিও পোস্ট করে খবরটি প্রকাশ্যে আসে। গত বছর ধারাবাহিকটি বন্ধ হয়ে গেলেও এই লকডাউনের সময় কাজ পাচ্ছেন না তাঁরা। ধারাবাহিকের প্রযোজকরা টাকা মেটাননি বলে তাঁরা চরম অর্থকষ্টের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছেন। চাহাত খান্না সে সকল শিল্পীদের মধ্যে পড়েন যিনি টাকা পাননি মাসের পর মাস। দীর্ঘদিনের পারিশ্রমিক বাকি থাকায়, বাড়িতে আর্থিক সমস্যা দেখা দেয় স্বাভাবিকভাবে। যে কারণে আত্মহত্যার পথ বেছে নেওয়া ছাড়া উপায় পাননি চাহাত।