স্টেশনে শুয়ে মায়ের নিথর দেহ। বারে বারে শিশুটি ডেকে তোলার চেষ্টা করছে মা কে। প্রতিবারের মত এবারেও হয়তো ভাবছে, এই বোধহয় মা উঠল। উঠেই দুধ খাওয়াবে আমায়। কথাও বলতে শেখেনি বাচ্চাটা, সবে তো গুটি গুটি পায়ে এদিক ওদিক যাওয়া শিখেছি। মা যে না খেতে পেয়ে মারা গিয়েছি সে আর বোঝার ক্ষমতা হয়নি তার। সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্রমাগত ভাইরাল হয়ে চলেছে ভিডিওটি। ভিডিওটা চলে উঠলেই স্ক্রল করে নিচের দিকে চলে যাচ্ছে সকলে। বেশিক্ষণ দেখার সাহস হয়নি তা কারও। তবুও এটাই সত্য। মহামারী, সাইক্লোন, সব মিলিয়ে দেশ এখন মৃত্যুর উপত্যকা।

আরও পড়ুনঃঅসম্পূর্ণ প্রেমের কাহিনি, রাজ কাপুরের সঙ্গে বিচ্ছেদেই আত্মহত্যার চেষ্টা নার্গিসের

ভিডিও না দেখে রাতের ঘুম উড়েছিল বহু মানুষের। এমনকি বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খানের। লকডাউনে তাঁর পক্ষে মুজফ্ফরপুর পৌঁছনো সম্ভব হয়নি ঠিকই। তবে খবর পাঠিয়ে দিয়েছিলেন নিজের ফাউন্ডেশন 'মীর'-এর কাছে। মীর ফাউন্ডেশন শিশুটিকে সুরক্ষিত অবস্থায় পৌঁছে দিয়েছে তাঁর ঠাকুরদার কাছে। কেবল তাই নয়, শিশুটিকে সমস্তরকমের সাহায্যে দিচ্ছে শাহরুখের এই সংস্থা। 

আরও পড়ুনঃগরম বাড়ছে ক্রমশ, বিকিনিতে ধরা দিয়ে পারদ চড়ালেন হিনা

 

ট্যুইট করে অভিনেতা সকলকে ধন্যবাদ দিয়ে জানিয়েছেন, "আপনাদের সকলকে অসংখ্য ধন্যবাদ। এই শিশুটির কাছে আপনারা আমার পৌঁছে দিতে সাহায্য করেছেন। চলুন আমরা সকলে মিলে প্রার্থনা করি যাতে ও এই কঠিন সময় কাটিয়ে উঠতে পারে। আমি জানি ওর দুঃখটা। আমাদের সাহায্য সবসময় শিশুটির সঙ্গে রয়েছে।" শাহরুখ মীর ফাউন্ডেশনের পোস্টটি শেয়ার করে কোথাও যেন নিজের দুঃখপ্রকাশ করেন। মা-বাবা দু'জনকেই খুব অল্প বয়সে হারিয়েছেন। মা-মরা শিশুটির দুঃখ তাঁর চেয়ে ভআল আর কেই বা বুঝবে। তাই ভিডিওটি ভাইরাল হতেই এক ফোটা সময় নষ্ট না করে, শিশুটির খোঁজ লাগিয়েছিলেন। খোঁজ পেতেই সাহায্যের হাত বাড়ালেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় এখন কেবল একটাই কথা। একটাই তো মন শাহরুখ সাহেব, কতবার জিতবে।