প্রায় গোটা বলিউডের একঝাঁক তারকাদের সঙ্গে নিয়েই শনিবারের সন্ধ্যা উদযাপন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মহাত্মা গান্ধীর আর্দশকে চলচ্চিত্রের মধ্যে সবার মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়া হোক সেই বার্তাই দিলেন তিনি। গান্ধীজির ১৫০ বছর জন্মদিন উপলক্ষ্যে গোটা বছর ধরেই নানা পরিকল্পনা রয়েছে মোদী সরকারের। সেই পরিকল্পনার 'চেঞ্জ উইদিন'-এর সূচনা হল আগামীকালই।

 নয়াদিল্লিতে প্রধানমন্ত্রীর নিজ বাসভবনে বলিউডের নামী-দামি অভিনেতা, পরিচালক থেকে প্রযোজকেরা উপস্থিত হয়েছিলেন। এছাড়াও হাজির ছিলেন শাহরুখ খান, আমির খান, কঙ্গনা রানাওয়াত, করণ জোহর, সোনম কাপুর, জ্যাকলিন ফার্নান্ডেজ, আনন্দ এল রাই, অনুরাগ বসু, একতা কাপুর, বনি কাপুর-সহ আরও তারকা ব্যক্তিত্বরাই।

 

ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির তাবড় লোকজনদের সঙ্গেও বলিউড নিয়ে নানান আলোচনা করেন মোদিজি। বলিউড নিয়েও নানান পরিকল্পনা রয়েছে তার। তিনি আরও জানান,' সৃজনশীলতার ক্ষমতা অপরিসীম। জাতির চেতনাকে জাগ্রত করার জন্য সৃজনশীলতা অপরিহার্য।' এছাড়াও চলচ্চিত্র জগতের সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের উদ্দেশ্যে জানান, সকলেই খুব ভাল কাজ করছে, তাদের এই সৃজনশীল কাজে সাহায্য করতে তিনি যথেষ্ঠ উৎসাহী।

 

ফিল্ম জগতের সমস্ত নক্ষত্রদের এক জায়গায় এনে গান্ধীজির এই মতাদর্শকে নতুন করে ছড়িয়ে দেওয়ার প্রধানমন্ত্রীর এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন  শাহরুখ খান, আমির খান সহ উপস্থিত ব্য়ক্তিত্বরা। বলিউডের  কিং খান জানিয়েছেন,' আমাদের হোস্টিংয়ের জন্য,'চেঞ্জ উইদিন'-এর  এত সুন্দর আলোচনার জন্য এবং মহাত্মা গান্ধীর আদর্শ সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে শিল্পীরা যে ভূমিকা নিতে পারেন, এই সব কিছুর জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ প্রধানমন্ত্রী।' এর পাশাপাশি নরেন্দ্র মোদি এবং মিস্টার পারফেকশনিস্ট এই সঙ্গে একটি সেলফিও পোস্ট করেন তিনি।

পরিচালক আনন্দ এল রাই জানিয়েছেন, 'প্রধানমন্ত্রীর এই উদ্যোগ ভীষণ ভাল লাগছে। গান্ধীজির এই আদর্শকে সবার মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়াই আমাদের এখনকার লক্ষ্য।' তবে এই প্রথমবার নয়, এর আগেও রণবীর কাপুর, রণবীর সিং এবং বলিউডের ব্যক্তিত্বদের নিয়ে বৈঠক করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।