আবারও কি বিয়ের পিঁড়িতে বসতে চলেছেন সোনু সুদ! না, বিষয়টা ঠিক তা নয়। তবে কেন হঠাৎ এমন প্রশ্নের মুখে পড়তে হল সোনু সুদকে। কেনই বা বিের মন্ত্র আবারও পড়তে রাজি হয়ে গেলেন তিনি! প্রশ্ন হাজার একটা থাকলেও, উত্তর ছিল একটাই, আর তা হল সেবা করার আদর্শ। ট্রোলিং হোক বা আবদার, সোশ্যাল মিডিয়াকে কীভাবে ব্যালন্স করতে হয়, তা তিনি সাফ চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিলেন। 

আরও পড়ুন- কী সেই অদ্ভুত কারণ, যার জন্য একটি ছেলের মন ভাঙতে হয়েছিল জাহ্নবীকে

২০২০ সালে থেকেই সকলের চোখে বদলে গিয়েছেন সোনু সুদ। তাঁর সার্বিক চিত্রটা এখন একটাই, তা হল তিনি গরীবের ভগবান। তাঁর আদর্শের গুণে ও তাঁর মনে প্রাণে মানুষকে সেবা করার প্রয়াসকে কুর্ণিশ জানিয়েছে গোটা দুনিয়া। চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছেন সোনু সুদ ইচ্ছে থাকলেই উপায় হয়। কীভাবে মানুষের বিপদে তিনি ভগবান হয়ে উঠেছিলেন পলকে তা নজরে পড়েছিল। সাধারণের কাছে তাঁর সোশ্যাল মিডিয়ার পাতা হয়ে উঠেছে হেল্প লাইন নম্বর। 

 

 

তাই মাঝে মধ্যেই সেখানে আআসে বেশ কিছু অদ্ভুত ও মজাদার প্রশ্নের ঝড়। কখনই বিরক্ত হয়ে কেউ বলছে বউকে বাড়ি পাঠিয়ে দিতে, কেউ আবার অনুরোধ জানাচ্ছে তাঁর প্রেমিক প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করার কথা। সোনু সুদ বরাবরই মন খুলে কথা বলেন। তাই এবার তাঁর দরবারে পড়ল এক মজার অনুরোধ। তা হল বিয়ে দিয়ে দিতে হবে। পাল্টা উত্তর মিলল সোনুর থেকে, বিয়ে তো হবে, কিন্তু পাত্রী থোঁজার দ্বায়িত্ব তাঁর নয়। এই মজার উত্তরেই এখন বুঁদ নেট দুনিয়া।