হাতে বেশ কয়েকটি ছবি থাকা সত্ত্বেও কেন সুশান্তকে অবসাদ গ্রাস করেছিল, একের পর এক বিগ বাজেটের ছবি কেন হাতছাড়া হয়েছিল সুশান্তের! মৃত্যুর পর তদন্তে নেমে এমনই প্রশ্নের মুখে পুলিশ ফেলল প্রযোজক সংস্থাগুলিকে। গত বৃহস্পতিবারই প্রযোজক সংস্থাগুলির থেকে চেয়ে পাঠানো হয়েছিল চুক্তিপত্র। সেই মতই সুশান্তের সঙ্গে হওয়া চুক্তিপত্র জমা করল যশরাজ ফিল্মস। শনিবার পুলিশের হাতে আসে বিস্তারিত তথ্য। 

বলিউডের একাধিক পরিচালক থেকে শুরু করে সুশান্তের ঘনিষ্ঠ মহলের দাবি বলিউড তাঁকে পরিকল্পনা করেই কোণ ঠাঁসা করছিল। ছবির প্রস্তাব দিয়েও তা পরবর্তীতে ফিরিয়ে নেওয়া হচ্ছিল। যশরাজ ফিল্মসের সঙ্গে মোট দুটি ছবি করেছেন সুশান্ত সিং রাজপুত। ২০১৩ সালে মুক্তি পেয়েছিল শুদ্ধ দেশী রোম্যান্স, এরপর মুক্তি পায় ব্যোমকেশ। তবে পরবর্তীতে পানি নামক একটি ছবির জন্য চুক্তিবদ্ধ ছিলেন সুশান্ত, যার কাজ পরে স্থগিত করে দেওয়া হয়েছিল। 

 

 

এই পানি ছবির কাজের জন্যই নাকি অপেক্ষায় ছিলেন সুশান্ত। একের পর এক ছবির প্রস্তাব ফেরাচ্ছিলেন অভিনেতা। এসেছিল রামলীলা, বেফিকরের মত ছবির প্রস্বাব। কিন্তু চুক্তিবদ্ধ থাকার কারণে সেই ছবিতে কাজ করার সুযোগ পাননি সুশান্ত। পানি ছবিকে কী ইচ্ছে করেই পিছিয়ে দেওয়া হচ্ছিল! কোনও পরিকল্পিত ষড়যন্ত্রের শিকার হচ্ছিল কী সুশান্ত, যা তাঁকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয়, এখন তা খতিয়ে দেখছেন পুলিশ।