যত দিন যাচ্ছে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশই বাড়ছে। এই পরিস্থিতিতে গোটা বিশ্বই প্রতিশেধকের আশায় দিন গুণছে। কিন্তু প্রতিষেধক হাতে আসার আগেই সুখবর দিল ব্রিটেনের কার্ডিফ বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি গবেষণা। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীদের পরীক্ষাগারের রিপোর্ট অনুযায়ী  জানা যাচ্ছে মাউথওয়াশ মাত্র ৩০ সেকেন্ডের মধ্যেই করোনার জীবাণুকে হত্যা করতে পারে। 

গতসপ্তাহে পরীক্ষার  রিপোর্ট সামনে এসেছে। ওয়ালস হাসপাতালে কার্ডিফ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা করোনা আক্রান্ত রোগীদের ওপর একটি সমীক্ষা চালিয়েছিলেন। সেই সমীক্ষার ফলাফল অনুযায়ী বিজ্ঞানীরা দাবি করেছেন যেকোনও সাধারণ 'ওভার দ্যা কাউন্টার মাউথওয়াস' জীবাণু নাশ করতে সক্ষম। বিজ্ঞানীদের দাবি মাউথওয়াশে ব্যবহার করা  সিটিপাইরিডিনিয়াম ক্লোরাইড। আর সেই রায়াসনিকটি পরীক্ষাগারে করোনার জীবাণুর ওপর প্রয়োগ করে তাঁরা দেখেছেন। তাতে দেখা গেছে রাসায়নিকটি করোনার জীবাণুকে হত্যা করতে সক্ষম। বিজ্ঞানীরা বলেছেন করোনারভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসায় মাউথওয়াশ ব্যবহার করা যায় কিনা সেব্যাপারে তাঁরা এখনও নিশ্চিত নন। কারণ করোনার চিকিৎসার জন্য মাউথওয়াশ ব্যবহার করা হলে তা ফুসফুসে পৌঁছাতে হবে। কিন্তু  তা কখনই প্রাকৃতিকভাবে সম্ভম নয়। 

এবার অধীর চৌধুরী বনাম কপিল সিবাল, ঠিক কোথায় গিয়ে থামবে কংগ্রেসের দলীয় কোন্দল ...

প্রবল শীত মোকাবিলায় লাদাখে স্মার্ট ছাউনি ভারতীয় সেনার জন্য, দেখে নিন তাতে কী কী আছে

বিজ্ঞানীরা দাবি করেছেন, তাঁরা পরীক্ষাগারে সিটিপাইরিডিনিয়াম ক্লোরাইডযুক্ত দুটি রিঞ্জ ও ইথানল করোনার জীবাণুর ওপর প্রয়োগ করার মাত্র ৩০ সেকেন্ডের মধ্যেই সেগুলির মৃত্যু হয়েছিল। আর সেই কারণেই বর্তমানে করোনা আক্রান্ত রোগীদের  ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চালিয়ে দেখা হচ্ছে মাউথওয়াশ ব্যবহারে সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচা যায় কিনা। আগামী বছরের গোড়ার দিকে সক্ষীমার পূর্ণ ফলাফল সামনে আসবে বলেও জানিয়েছেন তাঁরা। ব্রিটেনের বিজ্ঞানীদের সমীক্ষার রিপোর্ট এমন সময় এসেছে যখন যথন গোটা বিশ্বেই করোনাভাইরাসের সংক্রমণের সঙ্গে লড়াই করার জন্য একটি শক্তিশালী হাতিয়ার খুঁজছে। প্রতিষেধকের অপেক্ষা রয়েছে। মাউথওয়াশের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের ল্যাব পরীক্ষার ফালাফল প্রমাণ করছে যে এটি আগামী দিনে একটি অস্ত্র হিসেবে পরিণত হতে পারে।