আগামী জুনে জি-৭ সামিটে অংশ গ্রহণ করার জন্য ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরি জনসন। বরিস জনসনের কার্যালয় থেকে জারি করা একটি বিবৃতিতে জানান হয়েছে। করোনাভাইরাসের মহামারির, জলবায়ু পরিবর্তন, খোলা বাণিজ্য, প্রযুক্তি পরিবর্তন ও বৈজ্ঞানিক উদ্বাভন নিয়ে আলোচনা করা হবে আসন্ন জি-৭ সামিট সম্মেলনে। গতবছর মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের সভাপতিত্বে এই সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে এই সভা বাতিল করা হয়েছিল। আগামী জি-৭ সামিট অনুষ্ঠিত হবে ইংল্যান্ডের উপকূলবর্তী কর্নওয়ালের একটি গ্রামে। 

ভারতের পাশাপাশি অস্ট্রেলিয়া ও দক্ষিণ কোরিয়াকেও এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের জন্য আহ্বান জানান হয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, কানাডা, ফ্রান্স, জার্মানি, জাপানসহ ইউরোপীয় ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি দেশ একক্রিত হয়ে জি-৭ মঞ্চটি তৈরি করেছিল। এটি বিশ্বের সবথেকে শক্তিশালি একটি মঞ্চ, যেখানে অর্থনীতি প্রযুক্ত সহ একাধিক বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। রবিবারই ভারতে নিযুক্ত ব্রিটিন হাইকমিশনার জানিয়েছেন আসন্ন জি সামিট অনুষ্ঠানের জন্য ভারত, অস্ট্রেলিয়া দক্ষিণ কোরিয়াকে আমন্ত্রণ জানান হয়েছে। জি সামিটের মূল লক্ষ্যই হল বর্তমান পরিস্থিতিতে গণতান্ত্রিক ও প্রযুক্তিগতভাবে উন্নত দেশ গঠন। 

'আমাদের ধৈর্য পরীক্ষা নেওয়ার মত ভুল যেন কেউ না করে', সেনা দিবসে চিনকে হুঁশিয়ারি ভারতীয় সেনা প্রধানের...

ক্ষমতার জন্য বঙ্গ কংগ্রেসের মাজা ভেঙে ছিলেন মমতা, মান বাঁচাতে মুখ্যমন্ত্রীকে পুরনো দলে ফেরার আহ্বান ...
বিশ্বের ফার্মেসি ভারত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। মহামারির সঙ্গে লড়াই করার জন্য বিশ্বের ৫০ শতাংশ ভ্যাকসিনের যোগান দেবে ভারত। ব্রিটেনের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে সংক্রমণ রুখতে কাজ করবে বলে আগেই জানিয়েছিলেন দুই দেশের রাষ্ট্রপ্রধান। শনিবার বরিস জনসনের কার্যালয় থেকে জানান হয়েছে। দুশো বছর আগে এই এলাকার টিন আর তামার খনিগুলি শিল্প বিপ্লবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা  গ্রহণ করেছিল। আরও একবার বিশ্বব্যাপী পরিবর্তনের সাক্ষী থাকতে চলেছে কর্ণওয়াল এলাকা।