খুব বেশিদিন হয়নি, কাজে দিয়েছিল সে। হোটেলের ঘর থেকে এক  কিশোরের পচাগলা দেহ উদ্ধার করল পুলিশ।  ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে পূর্ব বর্ধমানের কালনার নাদনঘাটে। দু'জনকে আটক করেছে পুলিশ।

মৃতের নাম রাকেশ দেবনাথ। দিন কুড়ি আগে নানদঘাটের তুলসীডাঙায় এলাকায় হোটেল কাজে দিয়েছিল ওই কিশোর। দিনভর হোটেলে কাজ করার পর রাতে রাকেশ বাড়ির ফিরে যেত বলে জানা গিয়েছে। পরিবারের লোকেদের দাবি, রোজকার মতোই গত ১৪ জানুয়ারিও হোটেলে যাবে বলেই বাড়ি থেকে বেরিয়েছিল ওই কিশোর। কিন্তু আর বাড়ি ফেরেনি সে।  গত কয়েক দিন ধরে তাঁর কোনও খোঁজও পাওয়া যায়নি। 

আরও পড়ুন: ছাত্রীদের 'শ্লীলতাহানি'র চেষ্টা বিএসএফ জওয়ানের, নেতাজির জন্মদিনে তোলপাড় মেখলিগঞ্জ

জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার সকালে নাদনঘাট এলাকার যে হোটেলে রাকেশ কাজ করত, সেই হোটেল থেকে দুর্গন্ধ বেরোতে থাকে। খবর দেওয়া হয় থানায়। হোটেলের একটি ঘর থেকে রাকেশ দেবনাথের পচাগলা দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ঘটনাটি জানাজানি হতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। পুলিশ সূত্রে খবর, ওই হোটেলের যিনি মালিক, তিনি হোটেলটি দেখাশোনা করেন না। লিজে হোটেল চালান অন্য একজন। আটক করা হয়েছে দু'জনকেই।

কিন্তু হোটেলের কর্মী রাকেশ দেবনাথ মারা গেল কী করে? খুনের অভিযোগ তুলেছেন মৃতের পরিবারের লোকেরা। তাঁদের বক্তব্য, ওই হোটেলে অসামাজিক কাজকর্ম চলত এবং সম্ভবত তা জেনে ফেলেছিল কিংবা দেখে ফেলেছিল  রাকেশ। তাই তাকে খুন করা হয়েছে। তদন্তে নেমেছে পুলিশ।