পত্রলেখা বসু চন্দ্র, বর্ধমান: ছেলে-বউমার ঝগড়া থামাতে দিয়ে বিপদে পড়লেন শাশুড়ি! অ্যাসিডে পুড়ল বুক, পা-সহ শরীরের বেশ কিছুটা অংশ। গুরুতর জখম অবস্থায় তিনি ভর্তি হাসপাতালে। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে পূর্ব বর্ধমানের খণ্ডঘোষে।

আরও পড়ুন: মালদহে দামি গাড়িতে মিলল সাপের বিষ, পুলিশের জালে দুই পাচারকারী

আক্রান্তের নাম তিলোত্তমা সিংহ। বাড়ি, খণ্ডঘোষের খুদকুড়ি গ্রামে। বছর খানেক আগে প্রেম করে বিয়ে করেন তাঁর ছেলে অচিন্ত্য। বউমা রানুও খণ্ডঘোষেরই মেয়ে। সরকারি চাকরি করেন তিনি। প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, অচিন্ত্য ও রানুর একেবারেই বনিবনা ছিল না। বিয়ের পর থেকে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে অশান্তি চলত। মাঝেমধ্যেই বাপের বাড়ি চলে যেতেন তিনি। সেখানে থাকতে দীর্ঘদিন। এভাবেই চলছিল। 

আরও পড়ুন: আন্দোলনের পথে দাবি আদায় পড়ুয়াদের, ভর্তির জন্য বাড়তি ফি মকুব কলেজ কর্তৃপক্ষের

শুক্রবার সকালেও যথারীতি স্ত্রীর সঙ্গে অশান্তি শুরু হয় অচিন্ত্যের। তিলোত্তমা যখন অশান্তি থামাতে যান, তখনই ঘটে বিপত্তি।  নিজের ঘর থেকে অ্যাসিডের বোতল এনে রানু দেওয়ার ছুঁড়ে মারেন বলে অভিযোগ। দেওয়ালের পাশেই দাঁড়িয়েছিলেন শাশুড়ি। কাঁচের বোতল ভেঙে অ্য়াসিড লাগে তাঁর শরীরে। বুক, পা-সহ শরীরের বেশ কিছুটা অংশ পুড়ে যায়। গুরুতর জখম অবস্থায় উদ্ধার করে তিলোত্তমা সিংহ-কে ভর্তি করা হয় হাসপাতালে। এদিকে এই ঘটনা জানাজানি হতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। স্ত্রীর নামে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন আক্রান্তের ছেলে। অভিযুক্তকে আটক করেছে খণ্ডঘোষ থানার পুলিশ।