পত্রলেখা বসু চন্দ্র, বর্ধমান: আপত্তি ছিল প্রথম থেকেই। প্রেম করার অপরাধে ভোজালির কোপে শেষপর্যন্ত ছেলেকে খুন করে ফেলল বাবা! ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে পূর্ব বর্ধমানের পূর্বস্থলীতে। অভিযুক্ত পলাতক।

আরও পড়ুন: সদ্যোজাত কন্যাকে 'শ্বাসরোধ করে খুন', দেহ জঙ্গলে ফেলে দিল মা

মৃতের নাম আলিম উদ্দিন শেখ। বাড়ি, পূর্বস্থলীর হামিদপুর গ্রামে। পেশায় তিনি নির্মাণ শ্রমিক, কাজ করতেন কেরলে। গ্রামের এক তরুণীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল আলিম উদ্দিনের। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন,  ভিন রাজ্যে থাকাকালীনও প্রেমিকার সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ ছিল তাঁর। লকডাউনের জেরে মাস খানেক আগে গ্রামে ফেরেন ওই যুবক। কিন্তু বাড়িতে বিয়ে কথা বলতেই বেঁকে বসেন বাবা আবদুল সালেক শেখ। সাফ জানিয়ে দেন, ছেলে যাকে ভালোবাসে, তাঁর সঙ্গে কোনওমতে বিয়ে দেবেন না। এই নিয়ে বাবা-ছেলের মধ্যে অশান্তিও হয়।

আরও পড়ুন: কীসের ইঙ্গিত, ফের সরকারি অনুষ্ঠান এড়িয়ে ঝাড়গ্রামে আদিবাসী সমাবেশে শুভেন্দু

মৃতের আত্মীয় কেরামত শেখ জানিয়েছেন,  শনিবার সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে বেরিয়েছিলেন আলিম উদ্দিন। রাতে ফেরার পর নিজের ঘরে চলে যান তিনি। এরপর ছেলের ঘরে ঢুকে দরজা ভিতর থেকে বন্ধ করে দেন আবদুল সালেক শেখ। বন্ধ ঘরে আলিম উদ্দিন পেটে তিনি ভোজালির কোপ মারেন বলে অভিযোগ। রক্তাক্ত অবস্থায় কোনওমতে জানালা দিয়ে বেরিয়ে এলেও আর বাঁচেননি আক্রান্ত যুবক। ঘটনাস্থলেই মারা যান তিনি। ছেলের বাঁচাতে গুরুতর আহত হয়েছেন আলিম উদ্দিনের মা-ও।  হাতে আঘাত লেগেছে তাঁর। ঘটনাটি জানাজানি হতেই শোরগোল পড়ে যায় এলাকায়। পরিস্থিতি বেগতিক বুঝে চম্পট দেয় অভিযুক্ত আবদুল সালেখ শেখ। তার সন্ধানে তল্লাশি চালাচ্ছে পূর্বস্থলী থানার পুলিশ। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার হয়েছে রক্তমাখা ভোজালি।