পত্রলেখা বসু চন্দ্র, বর্ধমান-মাস্ক না পরার খেসারত। রক্তারক্তি কাণ্ড ঘটে গেল বর্ধমান মেডিক্য়াল কলেজ হাসপাতালে। মাস্ক না পরায় রোগীর এক আত্মীয়কে বেধড়ক মারধর করে হাসপাতালের নিরাপত্তারক্ষী। শুধু তাই নয়, রোগীর ওই আত্মীয়কে লাথি মারারও অভিযোগ উঠেছে ওই নিরাপত্তারক্ষীর বিরুদ্ধে। শেষমেষ, মুখে রুমাল ঢাকা দিয়ে ওই নিরাপত্তা রক্ষীর সঙ্গে বচসায় জড়াতে দেখা গেল আক্রান্ত রোগীর আত্মীয়কে।

আরও পড়ুন-পুজোতেই কি প্রাণঘাতি হামলা চালাত ধৃত আল কায়দা জঙ্গিরা, রবিবার দিনভর চলবে জিজ্ঞাসাবাদ

জাানগেছে, বুদবুদ থানার সন্ধীপুরের বাসিন্দা বছর চল্লিশের হীরালাল মিদ্দা প্যাঙ্কাইটিস স্টোন চিকিৎসার জন্য মঙ্গলবার বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। শনিবার অস্ত্রোপচারের কথা ছিল তাঁর। সেকারনে রক্তের প্রয়োজন পড়লে রক্তদাতা সঙ্গে নিয়ে চিকৎসকের পরামর্শ মতো পরিবারের দুজন দুই রক্তাদাতাকে সঙ্গে নিয়ে অপারেশন থিয়েটরের গেটের সামনে দাঁড়িয়েছিলেন। তাঁদের মধ্য়ে একজন ছিলেন রোগীর আত্মীয় শেখ কওসর আলি। তিনি মাস্ক আনতে ভুলে যাওয়ায় মুখে রুমাল বেঁধে দাঁড়িয়েছিলেন। অভিযোগ, হাসপাতালের এক নিরাপত্তারক্ষী মাস্ক না পরায় কওসরের সঙ্গে দুর্ব্য়বহার করেন। এমনকি তাঁকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেয় ওই নিরাপত্তারক্ষী। এখানেই শেষ নয়, অন্য এক নিরাপত্তারক্ষী তাঁর হাতের লাঠি দিয়ে কওসরের মাথায় আঘাত করলে তাঁর মাথা ফেটে যায়। 

আরও পড়ুন-সহজলভ্য বস্তু দিয়ে বিস্ফোরক-জ্যাকেট তৈরি, সেনার উপর হামলার ছক ছিল ধৃত আল কায়দা জঙ্গিদের

ঘটনার জেরে তুমুল উত্তেজনা ছড়ায় হাসপাতালে চত্বরে। রক্তাক্ত অবস্থায় হাসপাতাল সুপারের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করে আক্রান্ত রোগীর আত্মীয় সঙ্গীরা। অভিযোগ পেয়ে হাসপাতাল সুপার প্রবীর সেনগুপ্ত জানিয়েছেন, অভিযোগ পেয়েছি, বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।