চিনা রঙে থাকতে পারে করোনা ভাইরাস। ত্রুটি থাকতে পারে নির্ভেজাল আবিরে। বাধ্য হয়ে ফুলের শরনাপন্ন। পাপড়ি দিয়ে অভিনব বসন্ত উৎসব পালন বর্ধমানের কাটোয়ার  দাইহাটে। 

একে অপরের গালে ফুলের পাপড়ি মাখিয়ে চলল নাঁচ, গান প্রভাতফেরী। এভাবে ফুলের পাপড়ি দিয়ে বসন্ত উৎসব পালন করল পূর্ব বর্ধমানের কাটোয়ার দাইহাটের নেতাজি সুভাষ চন্দ্র স্কাউটস এন্ড গাইডস । রবিবাসরীয় সকালেই তারা এলাকায় প্রভাতফেরী বের করে। গান আর নাচ সঙ্গে ফুলের পাপড়ি। 

রাস্তায় ফুলের পাপড়ি ছড়িয়ে তারা গোটা এলাকা পরিক্রমা করেন । পাশাপাশি ফুলের পাপড়ি একে অপরের গায়ে মাখিয়ে দেয় আবির খেলার ঢঙে। করোনা আতঙ্ক দূর করতে এবং সবাই যাতে এভাবে বসন্ত উৎসব পালন করে সেই বার্তা দিতে তাদের এই উদ্যোগ বলে জানিয়েছে উদ্যোক্তারা। 

দেশের সাম্প্রতিক  চিত্র বলছে, করোনা ভয়ে আক্রান্ত দেশবাসী। চিনা  রঙে বাজার ছেয়ে গিয়েছে দেখে রং খেলার ঝুঁকি নিচ্ছেন না অনেকেই। খোদ হোলি  খেলবেন না বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। টুইটে প্রধানমন্ত্রী লেখেন, নোভেল করোনাভাইরাসের কারণে এই বছর তিনি কোনওরকম দোলের অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন না।  পৃথিবীজুড়ে বিশেষজ্ঞরা পরামর্শ দিচ্ছেন-একসঙ্গে যাতে বহু সংখ্যক মানুষ দোলের অনুষ্ঠানে যোগ না দেন। এতে করোনাভাইরাস ছড়ানোর আশঙ্কা থাকবে।

যার জেরে শান্তিনিকেতনে বিশ্ববারতীর মতো জায়গাতেও বন্ধ হয়েছে  বসন্ত উৎসব। সচেতনতা প্রচারে বলা হয়েছে, ভাইরাস  নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। তবে সাবধানতার মার নেই। সর্দি,কাশির উপসর্গ থাকলেই স্বাস্থ্য় পরীক্ষা করতে বলা হয়েছে। ইতিমধ্য়েই রাজ্য়ের সবকটি হাসপাতালকে করোনা নিয়ে সতর্ক করেছে রাজ্য় স্বাস্থ্য় দফতর। প্রতিটি হাসপাতালে করোনা আক্রান্তদের জন্য় আলাদা ওয়ার্ড রাখতে বলা হয়েছে। প্রতিদিন করোনার উপসর্গ  নিয়ে য়ারা ভর্তি হচ্ছেন, তাদের পরিচয় পাঠাতে বলা হয়েছে স্বাস্থ্য় দফতরে।