পত্রলেখা বসু চন্দ্র, বর্ধমান:  চুরিবিদ্যা মহাবিদ্যা যদি না পড়ো ধরা। এক্ষেত্রে চোর কিন্তু ধরা পড়েনি, বরং সে নিজেই সোনা, টাকা-পয়সা ফেরত দিয়ে গিয়েছে গৃহস্থকে! আজবকাণ্ড বর্ধমানের মাঠপাড়ায়। 

আরও পড়ুন: পিপিই কিট পরে শিক্ষক সংবর্ধনা, করোনা আতঙ্ক পাল্টালো ছবি

হাতে ছিল সময় ছিল মাত্র কয়েক ঘণ্টা। বৃহস্পতিবার ভরসন্ধেবেলায় বাড়িতে তালা দিয়ে সপরিবারে আত্মীয়ের বাড়িতে গিয়েছিলেন বর্ধমান শহরের আলুডাঙা মাঠপাড়ায় বাসিন্দা হীরা শেখ। তারমধ্যেই বাড়ি থেকে সোনা ও নগদ টাকা লুট করে চম্পট দেয় দুষ্কৃতীরা। বাড়ি ফিরে হীরা দেখেন, ঘরের তালা ভাঙা। তছনছ করে দেওয়া হয়েছে আলমারী। সোনার গয়না, টাকা পয়সা কিছুই নেই! দেরি না করে সঙ্গে সঙ্গে বর্ধমান থানায় অভিযোগ দায়ের করেন তিনি। যথারীতি চুরির তদন্তও শুরু করে পুলিশ। 

আরও পড়ুন: শিক্ষক দিবস, নিহত পার্শ্বশিক্ষকদের পরিবারের পাশে দাঁড়ালেন সহকর্মীরা

শনিবার সকালে খবর আসে, তাঁর বাড়ি সামনে একটি ব্যাগ পড়ে রয়েছে। কী ব্য়াপার? তড়িঘড়ি বাড়ি ফেরেন হীরা শেখ।  ব্যাগটি খুলতেই চক্ষুচড়ক গাছ! টাকা, সোনা গয়না-সহ যা যা চুরি হয়ে গিয়েছিল, তা সবই রয়েছে ওই ব্যাগে। এখন প্রশ্ন হল, দুষ্কৃতীরা কেন সবকিছু ফিরিয়ে দিয়ে গেল? জানা গিয়েছে, দু'জনের উপর সন্দেহ ছিল হীরা শেখের পরিবারের লোকেদের। সেকথা পুলিশকে জানিয়েও ছিলেন তাঁরা। তদন্তে নেমে পুলিশ আধিকারিকরা তাদের জিজ্ঞাসাবাদও করেন। তাতেই সম্ভবত কাজ হয়েছে।  তবে সে যাই হোক, সবকিছু ফিরে পেয়ে খুশি হীরা শেখের পরিবারের লোকেরা।