রাজ্যের কোলিয়াড়ি এলাকায় এবার প্রকাশ্যে তৃণমূল গোষ্ঠীকোন্দল। কয়লা তোলা নিয়ে বচসার জেরে চলল গুলি। গুলিবিদ্ধ হয়ে প্রাণ গেল এক ব্যক্তির। নিহত ব্যক্তি শাসকদলেরই কর্মী। ঘটনাটি ঘটেছে দুর্গাপুরের অন্ডালে।

আরও পড়ুন: পুড়ে ছাই পরপর ৬টি বাড়ি ও ৩টি দোকান, ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে দিশেহারা অবস্থা পরিবারের

মৃতের নাম ধরম লুনিয়া। বাড়ি, অন্ডালের খাসকাজোরা এলাকায়। সক্রিয় তৃণমূল কর্মী হিসেবে এলাকায় পরিচিত তিনি। অন্ডালের বিভিন্ন প্রান্তে বৈধ কয়লাখনি সংখ্যা নেহাতই কম নয়। স্থানীয় সূত্রে খবর, বুধবার রাতে মদের আসর বসেছিলেন স্থানীয় কয়েকজন তৃণমূল কর্মী। সেই আসরে ছিলেন ধরমও। আচমকাই খনি থেকে কয়লা তোলা মিয়ে বিদ্যুৎ লুনিয়া এক যুবকের সঙ্গে বচসা শুরু হয় তাঁর। বচসা হাতাহাতি গড়াতে বেশি সময় লাগেনি। এরপর ধরমকে লক্ষ্য করে বিদ্যুৎ গুলি চালিয়ে দেয় বলে অভিযোগ। ঘটনাস্থলে মারা যান গুলিবিদ্ধ ওই ব্যক্তি। আহত হন আরও দু'জন। মৃতের দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ। আহতেরা ভর্তি দুর্গাপুরের বেসরকারি হাসপাতালে।

আরও পড়ুন: শহরে শীতের আমেজ উধাও, আরও বাড়ল সর্বোচ্চ তাপমাত্রা, ঘূর্ণাবর্তের জেরে ফের বৃষ্টি

উল্লেখ্য, অন্ডালের খনি এলাকায় কয়লা তোলাকে কেন্দ্র অশান্তি চলে বছরভরই। সংঘর্ষে ঘটনা যে ঘটে না, তেমনটাও নয়। এবার সেই অশান্তিরই বলি হলেন এক তৃণমূল কর্মী। মূল অভিযুক্ত বিদ্যুৎ লুনিয়া পলাতক। তার সন্ধানে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ। মুখে কুলুপ স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের।