ভারতকে ডিডিটাল করার লক্ষ নিয়ে  একের পর এক পরিবর্তন করতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। স্মার্ট করার তাগিদে সব কিছুই এখন স্মার্ট। আধার কার্ড থেকে রেশন কার্ড সবকিছুই এখন স্মার্ট।  আধার, প্যানের  ভোটার কার্ডের পর রেশন কার্ডকেও ডিজিটাল কার্ডের আওতায় আনতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার। এবার রেশন কার্ড নিয়ে বড়সড় পদক্ষেপ নিল সরকার। প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ যোজনা পার্ট ২-তে যাদের কাছে রেশন কার্ড নেই তাদেরও বিনামূল্যে ৫  কেজি চাল অথবা গম ও ১ কিলো ডাল নভেম্বর মাস পর্যন্ত দেওয়ার ঘোষণা করেছে সরকার ৷ মহাসঙ্কট পরিস্থিতিতে দেশের বর্তমান পরিস্থিতি দেখে নভেম্বর ২০২০ পর্যন্ত এই সাহায্য দেওয়ার ঘোষণা করা হয়েছে ৷

আরও পড়ুন-ক্রেডিট থেকে ডেবিট কার্ড, ব্যাঙ্কিং পরিষেবার সুবিধা ও নয়া ফিচার মিলবে এবার হোয়াটসঅ্যাপেই...

এই যোজনার আওতায় দেশের ৮০ কোটিও বেশি মানুষকে এই সুবিধা দেওয়া হবে ৷ কিন্তু এর মধ্যেই সামনে এসেছে বেশ কিছু জাল রেশন কার্ড ৷ এই সমস্ত রেশন কার্ডগুলিতে  বেশ কয়েক মাস ধরে কোনও রেশন নেওয়া হয়নি ৷  সূত্র থেকে জানা গেছে, জাল রেশন কার্ডে দেওয়া হবে না কোনও রেশন৷ মধ্যপ্রদেশের কটনিতে মিলেছে বহু জাল রেশন কার্ড।  এবার থেকে তাদের আর মিলবে না রেশন ৷ জানা গিয়েছে, কটনি জেলায় প্রায় ১২ হাজার পরিবার রয়েছে যারা ৩ মাস রেশন নেয়নি ৷

আরও পড়ুন-রয়েছে ৪৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা সেন্সর, ১৪ জুলাই থেকে প্রথম বিক্রি শুরু পোকো এমটু প্রো এর...

এই সমস্ত রেশন কার্ড নকল বলেই মনে করা হচ্ছে  ৷ যদি তা সত্যি হয় তাহলে তারা আর রেশন পাবেন না ৷ এর পাশাপাশি কোনও রেশন কার্ডে গত ৩ মাসে রেশন না নেওয়া হলে সেগুলিও  ভেরিফিকেশনের জন্য পাঠানো হবে ৷ আর তা যদি  জাল রেশন কার্ড হয়, তাহলে  সঙ্গে সঙ্গে সেটি লিস্ট থেকে বাদ দেওয়া হবে৷ যত দিন যাচ্ছে ততই বাড়ছে  জাল রেশন কার্ডের সংখ্যা। এই সংখ্যাটা আটকানোর জন্যই আধারের সঙ্গে রেশন কার্ড লিঙ্ক করা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।