বর্তমানে সমস্ত জায়গায় প্রামাণ্য দলিল হিসেবে এই আধার কার্ড ব্যবহার করা হয়। প্রতিটা ক্ষেত্রেই বাধ্যতামূলক করা হয়েছে আধার কার্ড। ফের আধার কার্ড নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত নিল কেন্দ্রীয় সরকার। এবার বয়সের ভিত্তিতে নয়া আধার কার্ড এনেছে 'ইউনিক আইডেন্টিফিকেশন অথরিটি অফ ইন্ডিয়া' ।  যে সমস্ত শিশুদের বয়স ৫ বছরের নিচে, তাদের জন্যই আনা হয়েছে এই বাল আধার কার্ড। কীভাবে পাবেন 'বাল আধার কার্ড', রইল বিস্তারিত তথ্য।

আরও পড়ুন-আচমকাই শ্বাসকষ্ট হচ্ছে, অ্যাজমার রোগীরা সাবধান, মারণ রোগে আক্রান্ত কিনা বুঝবেন কীভাবে...

 


বাল আধার কার্ডের জন্য কী কী নথির প্রয়োজন 


বাল আধার কার্ড পেতে গেলে সবার আগে শিশুর বয়স যে ৫ বছরের নিচে তার প্রমাণ দিতে হবে অভিভাবককে।

শিশুর আধার কার্ড পাওয়ার ক্ষেত্রে অভিভাবকদের আধার কার্ডেরও নথি দেখাতে হবে। 

তাহলে শিশুর বাল আধার কার্ডের সঙ্গে বাবা-মায়ের আধারও লিঙ্ক করা সম্ভব হবে।


 বাচ্চাকে স্কুলে ভর্তি করতে হলে আধার রেজিস্ট্রেশনের জন্য স্কুলের আইডি কার্ড দেখাতে হবে। অথবা শিশুর পরিচয়ের বিষয়ে স্কুলের কোনও প্রামাণ্য নথি এই বাল আধার কার্ড।


কী সুবিধা পাবেন বাল আধার কার্ডে

 

প্রথমত, ৫ বছরের নিচে শিশুদের জন্য এই বাল আধার কার্ড অত্যন্ত লাভদায়ক। কারণ এই আধার কার্ডের মাধ্যমে রেল, বিমান  কিংবা হোটেলে  শিশুর পরিচয়পত্র হিসাবে গণ্য হবে এই বাল আধার কার্ড।


বিশেষত বেশিরভাগ স্কুলই ভর্তির সময় বাল আধার কার্ড দেখতে চাইছে। সেক্ষেত্রে এই একটি গুরুত্বপূর্ণ নথির কাজ করবে।


 সরকারি স্কুলে শিশুদের মিড-ডে মিল দেওয়া বাধ্যতামূলক করেছে সরকার। সেক্ষেত্রে এই বাল আধার কার্ড করা থাকলে ভুয়ো ক্ষেত্রে নতুন করে ভর্তুকি দিতে হবে না সরকারকে। 

আপনার  শিশু যেন সরকারের কোনও রকমের ভর্তুকির প্রকল্প থেকে বাদ না পড়ে তার জন্যও এই বাল আধার কার্ড অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।


 বাল আধার কার্ডের অনলাইন রেজিস্ট্রেশন কীভাবে করবেন 


বাল আধার কার্ডে রেজিস্ট্রেশনের জন্য শিশুর বাবা-মাকে প্রথমে  UIDAI-এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে লগ ইন করতে হবে। যদি কোনও কারণে আধারের কার্ডের সঙ্গে আপনার মোবাইল নম্বর লিঙ্ক করা না থাকে তাহলে অবশ্যই তা করে নিতে হবে। 

 প্রথমে আধারের অফিশিয়াল অনলাইন পোর্টালে এই লিঙ্ক দিয়ে লগ ইন করুন। তারপর আধার কার্ডের রেজিস্ট্রেশন লিঙ্কে আপনাকে ক্লিক করতে হবে।

এবার সেখানে  শিশুর নাম, বাবার মোবাইল নম্বর, ইমেল আইডি দিতে হবে। নিজেদের ব্যক্তিগত তথ্য দেওয়ার পর এবার রাজ্য , জেলা, ঠিকানা সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্য সঠিক ভাবে দিতে হবে।

সেখান থেকে  ফিক্স অ্যাপয়েন্টমেন্ট ট্যাবে ক্লিক করুন। এরপর আধার কার্ডের রেজিস্ট্রেশনের তারিখ ঠিক করুন। যে কোনও একটা নির্দিষ্ট সেন্টার বেছে নিন। এবার অ্যাপয়েন্টমেন্টের তারিখ অনুসারে এনরোলমেন্ট সেন্টারে যেতে হবে আপনাকে।

অনলাইনে সাবমিট করা সব ধরনের ডকুমেন্ট এখানে আগে যাচাই হবে। বাছাই পর্বের সময় যদি শিশুর বয়স পাঁচ বছর হয়, তাহলে বায়োমেট্রিক তথ্য নিয়ে তা আধার কার্ডে লিঙ্কে দিয়ে দেওয়া হবে। 

ভেরিফিকেশন প্রসেস পুরো হলে আপনার কাছে একটা অ্যাকনলেজমেন্ট নম্বর আসবে। যা দিয়ে আপনি বাল আধার কার্ডের আবেদনের সমস্ত কিছু জানতে পারবেন।

 ভেরিফিকশেন শেষ হলেই আপনার রেজিস্টারড মোবাইল নম্বরে একটি এসএমএস আসবে। এবং এসএমএস পাওয়ার ৬০ দিনের মধ্যেই আপনার বাল আধার কার্ড ইস্যু হয়ে যাবে।