রেশন কার্ড এর গুরুত্ব সবথেকে বেশি টের পাওয়া গেছে এই লকডাউনে। কিছুদিন আগে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেছিলেন আগামী দিনে রাজ্যে যাতে রেশন বন্টন পদ্ধতিতে কোন অভিযোগ না আসে তার জন্য স্বচ্ছতা আনতে এসএমএস ওটিপি অথবা বায়োমেট্রিক পদ্ধতি আনতে চলেছে রাজ্য।  ইতিমধ্যেইসমস্ত রকম প্রক্রিয়া সেরে ফেলার নির্দেশ দিয়েছিলেন তিনি। এবার ডিজিটাল রেশন কার্ডের ক্ষেত্রে বড় সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য।

আরও পড়ুন-সস্তার সোনা কেনার সুযোগ দিচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার, নয়া স্কিমে রয়েছে আকর্ষণীয় সুযোগ...


এতদিন পর্যন্ত ইপিওএস মেশিনে আঙুল ঠেঁকিয়ে কিংবা ডিলারের হাতে রেশন কার্ড দিয়ে তারপরেই  রেশন তুলতে হয় গ্রাহকদের। কিন্তু সেখানেও যেন স্বাভাবিকভাবেই থেকে যায় সংক্রমণের ভয়। এবার করোনা আবহে গ্রাহকদের নিরাপত্তার কথা ভেবে বিশেষ উদ্যোগ নিল রাজ্য খাদ্য দফতর। সম্প্রতি খাদ্য দপ্তরের তরফ থেকে বিজ্ঞপ্তিতে  জানানো হয়েছিল, এই কাজের জন্য আপনাদেরকে রেশন কার্ড, আধার কার্ড  নিয়ে রেশন দোকানে যেতে হবে এবং রেশন ডিলারদের এটি সংযুক্তিকরণ এর কথা জানাতে হবে। এটি করতে রেশন ডিলাররা ই-পসের সাহায্যে তা করে ফেলবেন। বর্তমানে সব রেশন দোকানেই রয়েছে এই ই-পাস মেশিন,কারণ রেশনের জিনিসপত্র বিলির ক্ষেত্রে এটি এখন বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। 

আরও পড়ুন-মাত্র ৮৯৯৯ টাকায় শুরু হল অফার-সহ ফার্স্ট সেল, ১২ টা থেকে বিক্রি শুরু রেডমি নাইন-এর...


ডিজিটালাইজেশনের দিকে এবার  একধাপ এগিয়ে গেল পশ্চিমবঙ্গ। রাজ্যের নতুন এই উদ্যোগে গ্রাহকদের আর দোকানে রেশন কার্ড নিয়ে যেতে হবে না। শুধুমাত্র মোবাইল নিয়ে গেলেই কাজ হয়ে যাবে। সূত্র থেকেজানা গিয়েছে, রেশন সামগ্রী নিতে হলে গ্রাহকদের রেজিস্টার্ড মোবাইল নম্বরে চলে আসবে ওটিপি। এবার রেশন দোকানে গিয়েই সেটি দেখালেই মিলবে রেশন।  রেশন বণ্টন ব্যবস্থায় স্বচ্ছতা ও করোনা মহাসঙ্কটে  সুরক্ষিত ব্যবস্থার লক্ষ্যেই এই ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে। রেশন গ্রাহকদের আধার ও মোবাইল নম্বর সংযুক্তিকরণ করার কাজ বেশ কয়েকদিন ধরেই চলছে। ইতিমধ্যেই রাজ্যে ৭ কোটিরও বেশি রেশন গ্রাহকের আধার নম্বর সংযুক্তিকরণ হয়ে গিয়েছে। তবে এবার গ্রাহকদের আধার নম্বরের পাশাপাশি মোবাইল নম্বর সংযুক্তিকরণ করতে চাইছে সরকার। মোবাইল নম্বর নথিভুক্ত হয়ে গেলেই রেশন কার্ড ছাড়াই গ্রাহকদের পরিচয় যাচাই করা যাবে এবং  ওটিপি দেখালেই মিলবে রেশন।

 

তবে জেনে রাখুন,  এই সংযুক্তিকরণ প্রক্রিয়া একবার হয়ে গেলে  নির্দিষ্ট ব্যক্তি ছাড়া অন্য কেউ আপনার এই রেশন আর তুলতে পারবে না। কারণ আধার কার্ড সংযুক্ত হয়ে গেলে গ্রাহক যখন রেশন দোকানে যাবেন তখন তার আঙ্গুলের ছাপ দিয়েই তোলা যাবে রেশন। সেই কারণেই অন্য কেউ সেই রেশন তুলতে পারবেন না। যেহেতু এর আগে বহুবার রাজ্যে রেশন বিলিকে কেন্দ্র নিয়ে অভিযোগ উঠেছে আর এই অভিযোগ যাতে ভবিষ্যতে না ওঠে তার জন্যই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে আঙুলের ছাপ না মিললেও সেই গ্রাহক মোবাইল ওটিপিও ব্যবহার করতে পারেন। রেশন গ্রাহকের মোবাইলে যে ওটিপি আসবে সেই ওটিপি দিলেই এবার তোলা যাবে রেশন।