'সিপিএম-কে হারাতে যোগ দিয়েছিলেন তৃণমূলে।' সোশ্যাল মিডিয়ায় এবার নাম না করে টিম পিকে-এর বিরুদ্ধে সুর চড়ালেন কোচবিহার দক্ষিণ কেন্দ্রের বিধায়ক মিহির গোস্বামী। দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রতি আস্থা রাখা কী আদৌ যুক্তিযুক্ত? সে প্রশ্নও তুলেছেন তিনি।

আরও পড়ুন: নন্দীগ্রাম দিবসের পোস্টারের দেখা গেল মমতা-শুভেন্দুর ছবি, জল্পনা তুঙ্গে মেদিনীপুরে

দলের সাংগঠনিক পদ থেকে পদত্য়াগ করাই শুধু নয়, দিন কয়েক আগে নিজের কার্যালয় থেকে তৃণমূলের পতাকা-সহ সমস্ত ব্যানারও খুলে ফেলেছেন বিধায়ক মিহির গোস্বামী। নয়া ব্যানারে জ্বলজ্বল করছে, 'কোচবিহার দক্ষিণ কেন্দ্রের বিধায়ক মিহির গোস্বামীর কার্যালয়'। এমনকী, কার্যালয়ে ভিতরে থাকা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ছবি সরিয়ে লাগিয়েছেন স্বামী বিবেকানন্দ, নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের মতো মনীষীদের ছবি।  বিধানসভা ভোটের মুখে টিম পিকে-এর কাজকর্মে যে তিনি খুশি নন, তাও স্পষ্ট করে জানিয়েছিলেন বিধায়ক। এসবের মাঝেই আবার কোচবিহারের বিজেপি বিধায়ক নিশীথ প্রামাণিকের সঙ্গেও বৈঠক করেছে মিহির। আর এবার ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে কোচবিহার দক্ষিণ কেন্দ্রে তৃণমূল বিধায়ক জল্পনা উস্কে দিলেন আরও।

আরও পড়ুন: জেলেই মৃত্যু বেআইনি অর্থলগ্নি সংস্থার মালিকের, ভূবনেশ্বর জেলে মৃত্যু আইকোর কর্তার

ফেসবুকে পোস্ট কী লিখেছেন মিহির গোস্বামী? তৃণমূল বিধায়কের বক্তব্য, 'দিদির দলে যোগ দিয়েছিলাম কারণ তখন সিপিএমের বিরুদ্ধে লড়াইতে কং-দাদাদের চাইতে দিদিকেই বেশি আস্থার মানুষ মনে হয়েছিল। অবাক হয়ে দেখলাম লড়াইতে জিতে ক্ষমতা দখলের পরে দিদি সেই সিপিএমেই আস্থা রাখছেন বেশি।' তিনি আরও লিখেছেন, 'আজ যখন দেখছি দিদির দলে কোনো ঠিকাদার থিংকট্যাংক কোম্পানি ঢুকে পড়ে তছনছ করে দিচ্ছে ঘরবাড়ি, অপমানিত জনপ্রতিনিধিরা প্রতিবাদ জানাচ্ছেন অথচ দিদি অন্তরালে নির্বিকার, তাহলে সেই ঘরবাড়ির মতই দিদির প্রতি এতদিনের সব আস্থা ভেঙে চুরমার হয়ে যাওয়াটাই কি স্বাভাবিক নয়?' তাহল কি তলে তলে দলবদলের পরিকল্পনা করছেন? কৌতুহল বাড়ছে রাজনৈতিক মহলেও।