দেশে যাতে কোনওভাবেই কোরনাভাইরাসের গোষ্ঠী সংক্রমণ না ছড়ায় তার জন্য লকডাউন করা হয়েছে। বন্ধ রয়েছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, অফিস থেকে কলকারখানা। বন্ধ ট্রেন, বাস, বিমান। প্রয়োজন ছাড়া বাড়ি থেকে সকলকে বেড় হবে নিষেধ করছেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী। মানুষকে বোঝাতে রাস্তায় নেমেছে স্বয়ং পুলিশ-প্রশাসন। তাতে অবশ্য ভুক্ষেপ নেই ২৪ বছরের এক তরুণ রোমিওর। বান্ধবীর সঙ্গে দেখা করতে কোয়ারেন্টাইন থেকেই পালালেন ওই যুবক। ঘটনাটি ঘটেছে তামিলনাড়ুর মাদুরাইতে।

দুবাই থেকে দেশে ফেরার পর করোনার লক্ষণ দেখা গিয়েছিল ওই যুবকের শরীরে। সঙ্গে সঙ্গে মাদুরাই বিমানবন্দর সংলগ্ন  চিন্না উদয়প্পু ক্যাম্পের কোয়ারেন্টাইনে পাঠান হয়েছিল তাকে। কিন্তু ভালবাসা কী এসব বাধা মানে। তাই কোয়ারেন্টাইন থেকে পালিয়ে সোজা প্রেমিকার বাড়িতে হাজির হলেন শ্রীমান। 

এদিকে রোমিও পালিয়েছে বুঝতে পেরেই  খোঁজ শুরু করে প্রশাসন। যুবকের মোবাইল ফোনের টাওয়ার দেখে পুলিশ তার খোঁজে পৌঁছে যায় শিবগঙ্গা জেলায় তার প্রেমিকার গ্রামে । সেখান থেকেই আটক করা হয় ওই যুবককে। পুলিশি জেরায় যুবক জানায়, তার প্রেমিকার বাবা-মা এই সম্পর্কে রাজি নন। তাই  প্রেমিকার সঙ্গে লুকিয়ে দেখা করতে কোয়ারেন্টাইন থেকে  পালিয়েছিলেন শ্রীমান। 

করোনা শত্রুর বিরুদ্ধে নতুন অস্ত্র, নিউক্লিয়ার বাঙ্কার কাজে লাগাচ্ছে ইজরায়েল

দিনে আক্রান্তের সংখ্যা হাজার ছুঁলেও তৈরি আপ সরকার, ৪ লক্ষ মানুষকে খাওয়াবেন কেজরি

আইশঙ্কাই সত্যি হল, চিন ও ইতালিকে ছাড়িয়ে করোনা সংক্রমণে এখন এক নম্বরে ট্রাম্পের দেশ

এদিকে কোয়ারেন্টাইন আইন ভাঙার জন্য ইতিমধ্যে ওই যুবকের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে  অপহরণের অভিযোগ তুলে আলাদা মামলা করেছে  প্রেমিকার পরিবারও। এদিকে যুবকের সংস্পর্শে আসায় আইসোলেশনে পাঠান হয়েছে তার বান্ধবীকেও। 

করোনাভাইরাস একজনের সংস্পর্শ থেকে আরেকজনের শরীরে ছড়ায়। এবিষয়ে বারবার সচেতন করছে প্রশাসন। গোষ্ঠী সংক্রমণ এড়াতে তাই ২১ দিনের লকডাউন করা হয়েছে। তারপরেও অবশ্য মানুষের সচেতনতা রয়ে গেছে সেই তিমিরে। তারই প্রকৃষ্ট নিদর্শন এই তরুণ প্রেমিক। 

এদিকে এখনও পর্যন্ত এদেশে ৭৫৩ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে। তাঁদের মধ্যে ইতিমধ্যে প্রাণ হারিয়েছেন ২০ জন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৬৭ জন। ফলে এদেশে বর্তমানে করোনা পজিটিভ রোগীর সংখ্যা ৬৬৬।