বিশ্বের ১৯০টিরও বেশি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে মারণ করোনা ভাইরাস। যার মধ্যে রয়েছে ইজরায়েল। এই মারণ ভাইরাস থেকে দেশবাসীকে বাঁচাত এবার বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর দেশ এক অভিনব পদ্ধতি নিল। খুলে দেওয়া হল নিউক্লিয়ার বাঙ্কার।

পারমাণবিক অস্ত্রের হামলা থেকে দেশবাসীকে বাঁচাতে প্রায় একদশকেরও বেশি সময় আগে জেরুজালেমের পার্বত্য এলাকায় একটি বাঙ্কার তৈরি করেছিল ইজরায়েল সরকার। ন্যাশনাল ম্যানেজমেন্ট সেন্টার নামের এই বাঙ্কারটিতে জীবন ধারণের সবরকম সুবিধাই রয়েছে বলে জানাচ্ছে ইজরায়েল প্রশাসন। পাশপাশি এখান থেকে জেরুজালেমের সরকারি দফতর ও তেল আভিভে সঙ্গে সহজেই যোগাযোগ করা যেতে পারে। 

ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচি,  হিজবুল্লা ও প্যালেস্তিনিও জঙ্গি গোষ্ঠী হামাসের হামলা থেকে বাঁচতেই এই বাঙ্কার নির্মাণ করা হয়েছিল ইজরায়েলে। বাঙ্কারটি দেশে করোনা নিয়ন্ত্রণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবে বলেই মনে করছেন এক ইজরায়েলি আধিকারিক। তাঁর কথায়, "দীর্ঘ সময় ধরে আমাদের এই কঠিন পরিস্থিতির সঙ্গে লড়তে হবে। আর দেশে করোনার প্রভাব হ্রাস করতে এই বাঙ্কার আমাদের সাহায্য করবে বলেই আশা।"

আইশঙ্কাই সত্যি হল, চিন ও ইতালিকে ছাড়িয়ে করোনা সংক্রমণে এখন এক নম্বরে ট্রাম্পের দেশ

করোনা যুদ্ধে সামিল ভারতীয় রেল, ট্রেনের বগিতেই বানান হচ্ছে কোয়ারেন্টাইন

আর প্রাণের ঝুঁকি নিতে হবে না চিকিৎসকদের, করোনা রোগীদের এবার চিকিৎসা করবে রোবট

যদিও বাঙ্কারের সাফল্য নিয়ে মতবিরোধ তৈরি হয়েছে প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর মন্ত্রিসভাতেই। বর্তমান পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে  এই পদ্ধতি কার্যকর নয় বলেই মনে করছেন  প্রতিরক্ষামন্ত্রী নাফতালি বেনেট। তাঁর মতে, 'আমাদের উপর কোনও মিসাইল হামলা হচ্ছে না, যে মাটির নিচে থাকতে হবে। '

বিষয়টি নিয়ে কৌতুক করেছেন দেশের শক্তিমন্ত্রী যুবরাল স্টেনিটেজ। তাঁর কথায়, 'বাঙ্কার বোম থেকে রক্ষা করতে পারে, মাইক্রোবোম থেকে নয়।'

বর্তমানে ইজরায়েলে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২,৬৬৬। এখনও পর্যন্ত কোভিড-১৯ ভাইরাস প্রাণ কেড়েছে ৮ জনের। এতদিন করোনা সংক্রমণ আটকাতে নাগরিকদের উপর একাধিক নিষেধাজ্ঞা চাপিয়েছিল ইজরায়েল সরকার। শোনা যাচ্ছে, এবার পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে দেশটিকে লকডাউন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু।