গত ১০ দিনে দেশে করোভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা রীতিমত উদ্বেগ বাড়িয়েছে দেশের চিকিৎসা বিশেষজ্ঞদের। আক্রান্তের সংখ্যা ৩৫ লক্ষের কাছাকাছি। শনিবার পর্যন্ত স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দেওয়া তথ্যে মৃত্যুর হয়েছে প্রায় ৬২ হাজার মানুষের। এই পরিস্থিতিতে  ভারতে কি শুরু হল করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ? কী বলছেন বিশেষজ্ঞরা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বিশেষজ্ঞ জানিয়েছেন এই বিষয় নিয়ে এখনও পর্যন্ত সরকারি গবেষণা শুরু হয়নি। 

কিন্তু স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তথ্যই বলছে দেশের ২০টি রাজ্যের মধ্যে ১০ বড় রাজ্যেই রীতিমত বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। যা রেপিড অ্যান্টিজেন টেস্টের ক্রমবর্ধমান সংখ্যার পরিপ্রেক্ষিতে কিছুটা হলেও উদ্বেগজনক। দেশে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্য়াও গড়ে ৬০ হাজারেরও কাছাকাছি। এই পরিস্থিতিতে বিশেষজ্ঞদের কিছুটা হলেও স্বস্তি দিয়েছিল রিকভারি রেট বা সুস্থ হয়ে যাওয়ার সংখ্যা। কিন্তু বর্তমানে সেখানেই কিছুটা আশঙ্কার কালো মেঘ দেখছেন বিশেষজ্ঞরা। তাই নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেক বিশেষজ্ঞই মনে করছেন দেশে শুরু হয়েছে করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় তরঙ্গ। বর্তমানে আমরা প্রাথমিক স্তরে রয়েছি বলেও মনে  করছেন তাঁরা। 

বিশেষজ্ঞদের মতে দক্ষিণ কোরিয়া, চিন, জাপান, হংকং, ভিয়েতনাম,  ইন্দোনেশিয়ার মত এশিয়ার একাধিক দেশই করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ের সঙ্গে লড়াই করেছে। বর্তমান বিশ্বে অস্ট্রেলিয়া সর্বশেষতম সংযোজন করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউএর বিরুদ্ধে লড়াই করছে।

করোনাভাইরাস নিয়ে নতুন তথ্য গবেষকদের, জানুন পুরুষদের তুলনায় কেন মেয়েদের ঝুঁকি কম ..

চলমান মহামারির সঙ্গে লড়াই করার জন্য লকডাউন, বর্তমান পরিস্থিতি ও দ্বিতীয় তরঙ্গ নিয়ে আলোচনা করা খুবই জরুরি। জর্জিটাইন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক মার্ক ডায়বুল বলেছেন, খুব ধীরগতিতে সংক্রমণ ছড়ালে তা একটি বৃহৎ আকার নেয়। পরবর্তীকালে তা নিয়ন্ত্রণ করা খুব কঠিন হয়ে পড়ে। কঠোর বিধিনিষেধ স্থাপন করেও তা আটকানো সম্ভব হয় না। 

অ্যান্টিবডি পরীক্ষা থেকে কি জানা যায় আপনি করোনা আক্রান্ত, কী বলছেন বিশেষজ্ঞরা ...


বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ২ কোটিরও বেশিস মানুষ। ৮ লক্ষের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এখনও করোনা আক্রান্ত দেশগুলির ক্রমতালিকায় প্রথমেই রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রা। দ্বিতীয় স্থানে ব্রাজিল আর তৃতীয় স্থানে রয়েছে ভারত। 

  মৈত্রীর বার্তা দিয়েও লাদাখ সীমান্তে ভারী হচ্ছে লাল ফৌজের বুটের আওয়াজ, ডেমচেকে চালু ৫জি নেটওয়ার্ক ...