মিটে গিয়েছে বিধানসভা নির্বাচন। কিন্তু, তারপরও 'মোদী বনাম মমতা' টক্কর থামার লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়ে মমতা সরকারের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানাচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার। রাজ্যপালকে ফোন করে উদ্বেগ প্রকাশ করছেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী। অন্যদিকে, কেন্দ্রের বিরুদ্ধে কোভিড পরিস্তিতিতেও রাজ্যকে বঞ্চনা করার অভিযোগ আনছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুক্রবার, সেই আক্রমণই আরও একধাপ এগিয়ে নিয়ে গেল পশ্চিমবঙ্গ সরকার। কোভিড-১৯ টিকাকরণের বিষয়ে দেশব্যাপী 'অভিন্ন নীতি' নির্ধারণ এবং রাজ্যগুলিকে বিনামূল্যে ভ্যাকসিন দেওয়ার দাবি জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করল পশ্চিমবঙ্গ সরকার।

টিকাকরণ সংক্রান্ত কেন্দ্রের বর্তমান নীতি অনুযায়ী রাজ্য সরকার এবং বেসরকারি সংস্থআকে ভিন্ন মূল্যে টিকা বিক্রি করতে পারে প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলি। এদিন রাজ্যের পক্ষ থেকে সুপ্রিম কোর্টে কেন্দ্রের এই নীতিকে বাতিল করার আবেদন করা হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের আবেদনে আরও বলা হয়েছে, কেন্দ্রকে অবিলম্বে চাহিদা অনুযায়ী টিকার প্রাপ্যতা নিশ্চিত করতে পদক্ষেপ নিতে হবে। শুধু তাই নয়, সকল ভারতবাসীকে টিকাদানের জন্য রাজ্যদের কেন্দ্রের পক্ষ থেকে যাতে বিনামূল্যে ভ্যাকসিন বিতরণ করা হয়, সেই আবেদনও করেছে তৃতীয় মমতা সরকার।

আরও পড়ুন - এক ডোজেই কামাল, নতুন রুশ টিকা তৈরি হবে ভারতেই - করোনাধ্বস্ত দেশে আনতে পারে বিপ্লব

আরও পড়ুন - করোনা পরিস্থিতিতেও কেন্দ্রের বঞ্চনা - মোদীকে পত্রাঘাত মমতার, তুললেন অক্সিজেনের দাবি

আরও পড়ুন - ভাইরাল ভিডিও - তালাবন্ধ আইসিইউতে করোনা রোগীদের মৃতদেহ, নেই একজনও ডাক্তার-নার্স

এদিন, রাজ্যের অক্সিজেনের বরাদ্দের বিষয়েও প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখে অভিযোগ জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জানিয়েছেন, গত ১০ দিনে বাংলায় দৈনিক অক্সিজেন চাহিদা ৪৭০ মেট্রিক টন থেকে বেড়ে ৫৫০ মেট্রিক টন হয়েছে।  বরাদ্দ বৃদ্ধি নাকরে মোদী সরকার, এখনও বাংলাকে দৈনিক ৩০৮ মেট্রিক টন অক্সিজেন দিচ্ছে। অথচ, বাংলায় উৎপাদিত অক্সিজেন অন্য রাজ্যগুলিতে বরাদ্দ করার পরিমাণ ২৩০ মেট্রিক টন থেকে ৩৬০ মেট্রিক টন করা হয়েছে। রাজ্যে দৈনিক অন্তত ৫৫০ মেট্রিক টন অক্সিজেন বরাদ্ধ করার দাবি করেছেন তিনি।