গত ১৬ জানুয়ারি আনুষ্ঠানিকভাবে কোভিড ভ্য়াকসিন প্রয়োগের সূচনা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। প্রথম ধাপে স্বাস্থ্য পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত আধিকারিক ও কর্মীদের ভ্য়াকসিন প্রয়োগের কর্মসূচি। মাত্র ১৮ দিনেই সেই লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হয়েছে বলে জানাল কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক। এখনও পর্যন্ত ৪১ লক্ষের বেশি মানুষকে করোনা টিকা প্রদান করা হয়েছে বলে জানাল কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক।

আরও পড়ুন-'রথযাত্রা ঘিরে আইনশৃঙ্খলার অবনতি আশঙ্কা', বিজেপির 'পরিবর্তন যাত্রা'বাতিলের দাবিতে মামলা

দেশ জুড়ে চলা এই কর্মসূচির প্রথম দিকে রয়েছে পশ্চিমবঙ্গ ও গুজরাত। কোভিড ভ্যাকসিন প্রদানে প্রথমসারির যোদ্ধাদের তালিকা তৈরি করা হয়েছিল। সেক্ষেত্রে তাঁদের তালিকা তৈরি করে ইতিমধ্যেই এই দুই রাজ্য লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করে ফেলেছে বলেও স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে। বুধবার সকাল সাতটা পর্যন্ত স্বাস্থ্যমন্ত্রকের রিপোর্ট অনুযায়ী, ৪১ লক্ষ ২০ হাজার ৭৪১ জনের শরীরে করোনার ভ্য়াকসিন প্রদান করা হয়েছে। অন্যদিকে, কর্নাটক ৩ লক্ষ ১৬ হাজার ৩৬৮ জনের টিকাকরণ করেছে। মহারাষ্ট্র ৩ লক্ষ হাজার ৭৩৫ জনকে করোনার টিকা প্রদান করা হয়েছে। একনজরে দেখে নেওয়া যাক রাজ্যওয়াড়ি করোনার টিকাকরণের পরিসংখ্যান।

আরও পড়ুন-'আগামী ৭-৮দিনের মধ্যে ভোটের দিন ঘোষণা হবে', নির্বাচনী জনসভায় বললেন মুখ্যমন্ত্রী

অন্যদিকে, করোনার টিকাকরণের পাশাপাশি দেশ জুড়ে পোলিও টিকাকরণ কর্মসূচি চলছে। গত তিন দিন ধরে চলা এই প্রকল্পেও সফল হয়েছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক। পাঁচ বছরের নীচে শিশুদের পোলিও টিকাকরণে এখনও পর্যন্ত ১১,০৪ কোটি শিশুকে পোলিও র ডোজ দেওয়া হয়েছে। গত ৩০ জানুয়ারি গোটা দেশ জুড়ে পোলিও টিকাকরণ কর্মসূচির সূচনা করেছিলেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ।