বিধানসভা নির্বাচনের আগে বিজেপির পরিবর্তন যাত্রায় সায় দিল রাজ্য সরকার। ২০১৯ সালে লোকসভা ভোটের আগে বিজেপি এই অনুমতি চাইলেও, তা গ্রাহ্য করেনি রাজ্য সরকার। কিন্তু, একুশের নির্বাচনের আগে সেই ঘটনার পুনরাবৃত্তি আর হল না। রাজ্য বিজেপির কর্মসূচিতে সায় দিলেও, এই 'পরিবর্তন যাত্রা' নিয়ে জনস্বার্থ মামলা হল কলকাতা হাইকোর্টে। এই রথযাত্রার কারনে রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলার অবনতি হতে পারে। এমনই আশঙ্কা প্রকাশ করে আদালতে মামলা দায়ের হয়েছে।

আরও পড়ুন-'আগামী ৭-৮দিনের মধ্যে ভোটের দিন ঘোষণা হবে', নির্বাচনী জনসভায় বললেন মুখ্যমন্ত্রী

বিজেপি সূত্রে খবর, আগামী ছয় ফেব্রুয়ারি থেকে নবদ্বীপ থেকে রথযাত্রার সূচনা করবে বিজেপি। বিজেপির 'পরিবর্তন যাত্রা'র সূচনা করবেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। কিন্তু বাংলায় বিধানসভা ভোটের আগে বিজেপির এই রথযাত্রা আইনশৃঙ্খলার অবনতি করতে পারে বলে আদালতে জনস্বার্থ মামলা করেছেন কলকাতা হাইকোর্টের আইনজীবী। আইনজীবীর দাবি, ''রাজ্যে ভোটের আগে বিজেপির পরিবর্তন যাত্রা। রাজ্যের তিন জায়গা থেকে এই কর্মসূচি হলে মিছিল হবে। সেই মিছিল থেকে গন্ডগোলের আশঙ্কা রয়েছ। পাশাপাশি, রাজ্যের অভ্যন্তরে আইন-শৃঙ্খলার অবনতি হতে পারে। সেকারণে পুলিশ প্রশাসনের কাছে বিজেপির পরিবর্তন যাত্রায় অনুমতির বিষয়টি খতিয়ে দেখা দরকার''। 

আরও পড়ুন-ক্রমশ স্পষ্ট হচ্ছে দিব্যেন্দুর দলবদলের ইঙ্গিত, পরপর ৮টি প্রশাসনিক পদ থেকে ইস্তফা

কলকাতা হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলায় আইনজীবীর আরও দাবি, বিজেপির এই পরিবর্তন যাত্রার যেন অনুমতি না দেওয়া হয়। ভোটের আগে সাড়া ফেলতে বাংলায় পরিবর্তন যাত্রার কর্মসূচি নিয়েছে বিজেপি। ভোটের জন্য বাংলাকে আগেই পাঁচটা জোনে ভাগ করেছে বিজেপি। সেই পাঁচটি জোন থেকে ৬ ফেব্রুয়ারি বিজেপির রথযাত্রা কর্মসূচি শুরু হবে। প্রতিটি বিধানসভা কেন্দ্রেই বিজেপির এই রথযাত্রা পৌঁছাবে বলে জানিয়েছেন বিজেপির নেতারা। এই অবস্থায় বিজেপির এই 'পরিবর্তন যাত্রা'য় আইনশৃঙ্খলা নিয়ে জনস্বার্থ মামলা হল হাইকোর্টে। আগামী শুক্রবার এই মামলার শুনানি হতে পারে।