করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে এবার লড়াইয়ে সামিল হয়েছেন যোগগুরু রামদেব। প্রধানমন্ত্রীর কেয়ার ফান্ডে তিনি ২৫ কোটি টাকা দান করেছেন। তিনি জানিয়েছেন পতঞ্জলীর সমস্ত কর্মীরাই সামিল হয়েছে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে। সমস্ত কর্মীরা তাঁদের এক  দিনের বেতন দিয়েছেন বলেও তিনি দাবি করেছেন। যা প্রায় দেড় কোটি টাকা। 

একই সঙ্গে রামদেব জানিয়েছেন, তাঁর হরিদ্বার, কলকাতা , হিমাচল প্রদেশের ও উত্তর প্রদেশের আশ্রমে করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসা করায় জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা করা যেতে পারে। প্রায় দেড় হাজার মানুষকে ওই কেন্দ্রগুলিতে আইসোলেশনে রাখা সম্ভব বলেও জানিয়েছেন তিনি। আক্রান্তদের রীতিমত পরিচর্যা করা হবে বলেও প্রস্তবা দিয়েছেন তিনি। 

আর্থিক সাহায্যের পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে পতঞ্জলি খাবার ও প্রয়োজনীয় জিনিস সরবরাহ করবে। করোনাভাইরাস মোকিবালিয়া প্রধামন্ত্রী দেশের সমস্ত নাগরিকদের সামিল হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। সেই ডাকে সাড়া দিয়েই করোনাযুদ্ধে সামিল হয়েছেন যোগগুরু রামদের। রামদের অবস্য স্পষ্টই জানিয়েছেন করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ে দুশ্চিন্তার কিছুই নেই। 

আরও পড়ুনঃ নিজামুদ্দিনকাণ্ডে ক্ষুব্ধ কেজরিওয়াল, জানালেন করোনার উপসর্গ রয়েছে ৪৪১ জনের

আরও পড়ুনঃ ছেলের পাশে দাঁড়াল মা, করোনা মোকাবিলায় জমানো ২৫ হাজার টাকা দিলেন হীরাবেন

আরও পড়ুনঃ ঢাল নেই, তরোয়াল নেই, করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে যেন নিধিরাম সর্দার ভারতীয় চিকিৎসকরা
করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে পারে যোগ অভ্যাস। আর আয়ুর্বেদিক চিকিৎসায় রীতিমত সুস্থ হয়ে যায় করোনা আক্রান্ত রোগী। এমনই দাবি করলেন রামদেব। অভিষেক নামের এক আক্রান্ত টানা সাত দিন আয়ুর্বেদিক চিকিৎসায় ছিলেন। বর্তমানে তিনি সম্পূর্ণ সুস্থ বলেও দাবি করেছেন রামদেব। তাই এই রোগ নিয়ে অযোথা ভয় পাওয়ার কিছু নেই বলেই তিনি আশ্বাস দিয়েছেন। তবে এখনও দেশে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দেওয়া হিসেব অনুযায়ী বর্তমানে দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ১৫ শর বেশি। মৃত্যু হয়েছে ৪১ জনের। তবে এইরই মধ্যে রয়েছে সুখবর। কারণ শতাধিক মানুষ সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন।