মাস্ক পরতেই হবে। আর মাস্ক না পরলে কড়া শাস্তির সম্মুখীন হতে হবে নাগরিকদের। এমন কী নির্দেশ অমান্যকারীদের যেতে হতে পারে হাজতেও।  অনেকটা এমন সুরেই হুঁশিয়ারি দিল গ্রেটার মুম্বই মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন। পাব্লিক প্লেসে মাস্ক পরতেই হবে বলে জানান হয়েছে স্থানীয় প্রশাসনের তরফ থেকে। অফিস, যে কোনও রকম জমায়েত অথবা গাড়িতেও খুলে রাখা যাবে বা মাস্ক।


ইতিমধ্যেই চাহিদা মেটাতে উপযুক্ত মাস্কের সরবরাহ করা হয়েছে। প্রয়োজন অনুযায়ী ধুয়ে পরিষ্কার করা যাবে এমন মাস্কও সরবরাহ করা হচ্ছে। গ্রেটার মুম্বই পুরসভার তরফ থেকে আরও জানান হয়েছে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে মাস্ক পরা বাধ্যতা মূলক করতে চলেছে মহারাষ্ট্র সরকার। মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরেও রাজ্যের মানুষের কাছে মাস্ক পরার আবেদন জানিয়েছেন। ইতিমধ্যেই ছত্তিশগড়, নাগাল্যান্ড ও ওড়িশা মাস্কের ব্যবহার বাধ্যতামূলক করেছে। উদ্ধব ঠাকরে আরও বলেছেন, তিনি জানান রুজিরুটির তাগিদে বহু মানুষের কাছেই ঘরে স্বেচ্ছাবন্দি হয়ে থাকা সম্ভব নয়। কিন্তু করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে এছাড়া আর অন্য কোনও পথে এই মুহুর্তে তাঁদের হাতে নেই বলেও জানিয়েছেন তিনি। এই মুহুর্তে দেশের বাণিজ্যনগরী করোনাভাইরাসের অন্যতম একটি হটস্পট। দিনে দিনে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃতের সংখ্যাও। এশিয়ার বৃহত্তম বস্তি মুম্বইয়ের ধারাভি। সেখানেও আক্রান্তের সন্ধান পাওয়ায় রীতিমত উদ্বেগে ঠাকরে প্রশাসন। 

 
কেন্দ্রীয় সরকারের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী মহারাষ্ট্রে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশই বাড়ছে। বুধবারের তথ্য বলছে আক্রান্তের তালিকার শীর্ষ রয়েছে উদ্ধব ঠাকরের রাজ্য। আক্রান্তের সংখ্যা ১০১৮। মৃত্যু হয়েছে ৬৪ জনের। এখনও ৭৯ করোনাভাইরাসে সংক্রমিত মানুষ সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরতে পেরেছেন। 

আরও পড়ুনঃ বেসরকারি ল্যাবে করোনাভাইরাস পরীক্ষা কী নিখরচায়, কী বলল দেশের শীর্ষ আদালত

আরও পড়ুনঃ করোনা সংক্রমণ রুখতে রণনীতি বদল, দক্ষিণ কোরিয়ার পথেই কি ভারত

আরও পড়ুনঃ করোনা সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচতে ফেস মাস্ক কতটা নিরাপদ, কী বলছে সমীক্ষা