মাতৃদিবসে করোনায় মৃতা মায়ের দেহ আগলে শেষযাত্রায় নিয়ে গেলেন কন্যা।  পাশে দাঁড়ানোর মুখ নেই, প্রশাসন বধির আর তাঁর মধ্যে মাতৃ দিবসে করোনায় বিনা চিকিৎসায় মৃত মায়ের দেহ আগলে নির্বান্ধব সমাজে কার্যত মাকে একাই অভাগীর স্বর্গ দর্শন করলেন কন্যা আশালতা মন্ডল। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর চব্বিশ পরগণার হাবড়ায়।

আরও পড়ুন, শুধু পশ্চিমবঙ্গেই প্রায় সাড়ে ১২ হাজার মৃত্যু, শ্মশানেও দেওয়া যাচ্ছে না সামাল, কী বলছে পুরসভা 

করোনা মানুষকে মারছে প্রাণে, মৃত্যু হচ্ছে মনুষ্যত্বের। সবমিলিয়ে অমানবিক চিত্রই আবার ধরা পরল হাবরা থানার বেলের মাঠ এলাকায়। বৃদ্ধার মৃত্যুর পরে অবশেষে যে ভাবে মৃতের পরিবার নিজেই পিপিই কিট পরে নিয়ে যায় শ্মশান এর উদ্দেশ্যে তাতে তারই প্রমান মিলল । করোনায়  মৃত্যুর পর  মৃতদেহ ঝড় বর্ষায় বাইরেই পড়ে রইল সাহায্যে এগিয়ে এল না প্রশাসন । রবিবার সকাল সাতটা থেকে সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত বাড়িতেই মায়ের মৃতদেহ আগলে বসে ছিলেন উত্তর ২৪ পরগনা জেলার হাবরা থানা এলাকার বাসিন্দা আশালতা মন্ডল। পরিবারের পুরুষ সদস্যরা কাজের জন্য ভিন রাজ্যে থাকেন। আশালতা দেবি জানান, সাত দিন ধরে জ্বর ছিল। ৬ তারিখে করোনা পরীক্ষা করানোর পর ৮ তারিখে রিপোর্ট আসে করোনা পজিটিভ। বাড়িতেই চিকিৎসা চলছিল ওই বৃদ্ধ মহিলার। রবিবার সকাল সাতটায় মারা যান বৃদ্ধা মহিলা।

আরও পড়ুন, Live Covid 19- মমতার মন্ত্রীসভায় আজ শপথ নেবেন ৪৩ মন্ত্রী, কোভিড রুখতে ২ লক্ষ ভ্য়াকসিন কিনল পশ্চিমবঙ্গ 

অপরদিকে মৃত্যুর ১২ ঘণ্টা পার হলেও না এল না কোনও সরকারি সাহায্য। নাইবা পেয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দাদের সাহায্য। ঝড় বৃষ্টির মধ্যেই বাড়ির উঠোনে পড়ে থাকতে দেখা যায় মৃতদেহ। স্থানীয় প্রশাসনকে বারবার খবর দিলেও সাহায্য পাননি এমনই অভিযোগ। স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত মেম্বার দুটি পিপিই কিট দিয়ে চলে যান। অবশেষে শবদেহবাহী গাড়ি এলে বাড়ির দুই মহিলা পিপিই কিট পরে গাড়িতে তোলেন মৃতদেহ। করোনা আবহে ক্রমেই অমানবিক পরিমন্ডলে আশালতা মন্ডলের মাতৃ দিবস উদযাপনের পরিসমাপ্তি ঘটল এভাবেই।